কালুয়া নদীতে সেতু নেই, বিচ্ছিন্ন দুটি ব্লক

273

জটেশ্বর : আলিপুরদুয়ার জেলার ফালাকাটা ব্লকের ধনীরামপুর-১ গ্রাম পঞ্চায়েতের নরসিংপুর কালীবাড়িতে কালুয়া নদীতে আজও পাকা সেতু তৈরি হয়নি। ফলে দুটি ব্লকের দশহাজার মানুষ সমস্যায় পড়েছেন। বর্ষাকালে একপ্রকার বিচ্ছিন্ন হয়ে থাকেন তাঁরা। স্থানীয়দের দাবি, দ্রুত কালুয়া নদীতে সেতু তৈরি করতে হবে।

ফালাকাটা-ধূপগুড়ি ব্লকের সীমান্তে নরসিংহপুর কালীবাড়ি এলাকা দিয়ে বয়ে গিয়েছে কালুয়া নদী। ওই এলাকায় পাশাপাশি দুটি গ্রাম পঞ্চায়েতের মানুষ এই নদীপথেই দীর্ঘদিন ধরে যাতায়াত করেন। এই নদী পেরিয়ে সাঁকোয়াঝোরা এলাকার মানুষ ফালাকাটা ব্লকের কালীবাড়ি বাজারে আসেন। বছরের অন্যান্য সময়ে যোগাযোগ থাকলেও বর্ষার কয়েকটা মাস কালুয়া নদী দিয়ে পারাপার করা সম্ভব হয় না। যার জেরে বিপাকে পড়তে হয় সাধারণ মানুষকে। স্থানীয়দের অভিযোগ, নির্বাচন এলেই রাজনৈতিক নেতারা সেতুর দাবি পূরণের আশ্বাস দেন। কিন্তু ভোটপর্ব মিটলেই তা ভুলে যান। স্থানীয় বাসিন্দা বিষ্ণুপদ রায় বলেন, কালুয়া নদীতে পাকা সেতু না থাকায় নদীর অপর প্রান্তের মানুষজনকে আট কিলোমিটার ঘুরে যাতায়াত করতে হয়। কালীবাড়ির এই বাজারের উপর ধূপগুড়ি ব্লকের বহু মানুষ নির্ভরশীল। সুজন রায় নামে আরেক বাসিন্দা বলেন, কালীবাড়ি এলাকায় প্রাথমিক বিদ্যালয়, উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয় সহ বাজারঘাট রয়েছে। কালুয়া নদীতে সেতুর অভাবে শিশুরাও হেঁটে নদী পার হন। সপ্তাহে দুদিন গ্রামীণ হাট বসে কালীবাড়িতে। নদীতে সেতু না থাকায় বিপাকে পড়েন ব্যাবসায়ী সহ হাটে আসা মানুষজন। এ বিষয়ে স্থানীয় পঞ্চায়েত সদস্যা প্রতিমা রায় বলেন, কালুয়া নদীতে পাকা সেতুর দাবি দীর্ঘদিনের। বিষয়টি নিয়ে আমরাও ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে লিখিত দাবিপত্র তুলে দেব। আলিপুরদুয়ার জেলা পরিষদের সভাধিপতি শীলা দাসসরকার বলেন, ওই সেতুর বিষয়ে উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তর এবং রাজ্যে স্তাব পাঠানো হয়েছে। সেখান থেকে প্রস্তাব পাশ হয়ে গেলেই কাজ করা হবে।

- Advertisement -