পাঁচদিন যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন, ফালাকাটার চরতোর্ষা ডাইভারশনে অবস্থান বিক্ষোভ

426

ফালাকাটা: ফালাকাটা-সলসলাবাড়ি নির্মীয়মান মহাসড়কের চরতোর্ষা ডাইভারশন ভেঙে যাওয়ায় পাঁচদিন থেকে বিচ্ছিন্ন ফালাকাটা এবং আলিপুরদুয়ার। এনিয়ে বিস্তীর্ণ এলাকার বাসিন্দাদের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভ ছড়িয়েছে। দ্রুত ডাইভারশন সারাই ও বিকল্প ব্যবস্থার দাবিতে শুক্রবার অবস্থান বিক্ষোভ করেন বাসিন্দারা। বেহাল ডাইভারশনে দাঁড়িয়ে কালীপুরের পথের পরিচয় সংঘের নেতৃত্বে অবস্থান কর্মসূচিতে এলাকার বহু মানুষ শামিল হন।

স্থানীয়দের অভিযোগ, জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষের চরম গাফিলতির কারণে ভোগান্তি হচ্ছে হাজার হাজার মানুষের। পাঁচ দিনেও ডাইভারশন সারাইয়ের কাজ কেন শুরু হল না তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। এজন্য এলাকার কৃষক, ছাত্রছাত্রীরা সমস্যায় পড়েছেন। কেউ অসুস্থ হলেও চিকিৎসার জন্য ফালাকাটায় যেতে পারছেন না। তবে এনএইচএআই (জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষ)-এর উত্তরবঙ্গের প্রোজেক্ট ডিরেক্টর সঞ্জীব শর্মা বলেন, নির্মাণকারী সংস্থাকে ওই ডাইভারশন দ্রুত সারাইয়ের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

- Advertisement -

রবিবার রাতে ভারী বৃষ্টির কারণে চরতোর্ষা ডাইভারশন জলে ডুবে যায়। সোমবার থেকেই ফালাকাটা-আলিপুরদুয়ার সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। এদিকে চরতোর্ষা নদীর জল কিছুটা কমতেই ডাইভারশনের কঙ্কালসার চেহারা প্রকট হয়। কয়েকদিনের জলের ধাক্কায় ভেঙে যায় ডাইভারশনের একাংশ। একদিকের অ্যাপ্রোচ রাস্তা ভেঙে তৈরি হয়েছে বড় বড় গর্ত। ওই ভাঙা অংশ দিয়ে এখনও বুক সমান জল বইছে। সেজন্য মোটরবাইক, সাইকেল চলাচল বন্ধ রয়েছে।

কিছু মানুষ বিশেষ প্রয়োজনে বুক সমান জল ডিঙিয়ে ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করছেন। এই পরিস্থিতিতে সব থেকে বেশি সমস্যায় পড়েছেন ফালাকাটা-২ গ্রাম পঞ্চায়েতের উত্তর কালীপুর, দক্ষিণ কালীপুর, বংশীধরপুর সহ পূর্ব কাঁঠালবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের কয়েক হাজার মানুষ। কারণ, এইসব এলাকার বাসিন্দারা সব ক্ষেত্রেই ফালাকাটার উপর নির্ভরশীল। পাঁচদিন থেকে এলাকার কৃষকরা পণ্য নিয়ে ফালাকাটার কিষান মান্ডিতে যেতে পারছেন না।

কেউ অসুস্থ হলে ৬-৭ কিলোমিটার দূরের ফালাকাটা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের বদলে এখন যেতে হচ্ছে ৪০-৪৫ কিমি দূরবর্তী আলিপুরদুয়ার জেলা হাসপাতালে। ছাত্র-ছাত্রীরা টিউশন পড়তে ফালাকাটা শহরে যেতে পারছেন না। ডাইভারশন ভেঙে থাকায় এবার এইসব এলাকার বিশ্বকর্মা পুজোর আনন্দও ফিকে হয়ে যায়। সর্বস্তরের বাসিন্দাদের ক্ষোভের কারণেই এদিন অবস্থান বিক্ষোভ করা হয়।

কালীপুরের পথের পরিচয় সংঘের তরফে এদিন দুপুর ১২টা নাগাদ ডাইভারশনের একাংশে দাঁড়িয়ে মাইক লাগিয়ে অবস্থান বিক্ষোভ শুরু হয়। দু’ঘন্টার বিক্ষোভে শামিল হন এলাকার কয়েকশো বাসিন্দা। পথের পরিচয় সংঘের সম্পাদক বিমল কুমারবর্মন বলেন, এই অবস্থান বিক্ষোভের পরও কাজ না হলে আগামীতে বৃহত্তর আন্দোলন শুরু হবে। জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে অবস্থান কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন স্থানীয় বিষ্ণুপদ সরকার, দীপক বর্মন, জয়ন্ত সরকার প্রমুখ।

ফালাকাটার বিডিও সুপ্রতীক মজুমদার বলেন, বিষয়টি বারবার জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। জল কিছুটা কমলে শনিবারই ওই ডাইভারশন সারাইয়ের কাজ নির্মাণকারী সংস্থা শুরু করবে বলে জানিয়েছে।