থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভে শামিল যৌনপল্লীর কর্মীরা

87

দিনহাটা: পুলিশের তরফে দিনহাটা শহরের যৌনপল্লী থেকে এক নাবালিকাকে তুলে নিয়ে আসার ঘটনার প্রতিবাদে শনিবার দিনহাটা থানার সামনে অবস্থান বিক্ষোভে শামিল হওয়ার পাশাপাশি পথ অবরোধ করেন শতাধিক যৌনকর্মীরা। অবশেষে পুলিশের তরফে আশ্বাস মিলতেই একঘণ্টা বাদে অবরোধ তুলে নেন তাঁরা। এদিকে পথ অবরোধের জেরে দিনহাটা-কোচবিহার রাজ্য সড়কে সাময়িক সময় যান চলাচলে সমস্যা দেখা দেয়।

আন্দোলনরত যৌনকর্মীরা জানান, এদিন বিকেল নাগাদ হঠাৎই দিনহাটা থানার টাউনবাবু সহ বেশ কয়েকজন পুলিশ যৌনপল্লীতে গিয়ে এক মহিলার নাম ধরে ডাকাডাকি করেন। পুলিশ কর্মীদের ডাকে সারা দিতে দেরি হওয়ায় তার বাচ্চাকে তুলে নিয়ে যায় পুলিশ কর্মীরা।

- Advertisement -

ঘটনা প্রসঙ্গে ওই নাবালিকার বলেন, ‘আমার মেয়েকে বাইরে রেখে পড়াশোনা করাই। করোনার ফলে স্কুল বন্ধ থাকায় প্রথমদিকে কলকাতায় মামার বাড়িতে ছিল। মাসখানেক আগেই দিনহাটায় আমার কাছে আসে। হঠাৎ করেই এদিন পুলিশ মেয়েকে তুলে নিয়ে যায়। অথচ ওই মেয়ের সমস্ত প্রমাণপত্র আমার কাছে আছে, তারপরেও পুলিশ ওকে কেন নিয়ে আসল তার কারণ জানতে চাই।’ এরপরেই তিনি প্রশ্ন তোলেন, আমি একজন মা। মা হয়ে মেয়েকে নিজের কাছে রাখতে পারব না?

দিনহাটা থানার আইসি সঞ্জয় দত্ত জানান, চাইল্ড লাইনের অভিযোগের ভিত্তিতে ওই নাবালিকাকে তুলে আনা হয়েছে। এর আগেও অভিযান চালিয়ে তিন জন মেয়েকে উদ্ধার করা হয়। আজকে আরও একজনকে উদ্ধার করা হল। তিনি জানান উপযুক্ত প্রমান পত্র দেখাতে পারলে এবং নাবালিকাকে কেন এখানে রাখা হয়েছে তার সদুত্তর মিললে অবশ্যই তাকে ছেড়ে দেওয়া হবে। তবে, তারা যদি সদুওর না দিতে পারে, সেক্ষেত্রে আইনত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।