১০০ দিনের কাজে সচেতনতা বৃদ্ধির দাবিতে বিক্ষোভ

151

সমীর দাস, কালচিনি: ১০০ দিনের প্রকল্পের কাজ নিয়ে ব্লক প্রশাসনের তরফে জব কার্ডধারীদের সচেতন করা হচ্ছে না। ফলে ১০০ দিনের কাজে আবেদন করতে পারছেন না কালচিনি ব্লকের মানুষ। এই অভিযোগ তুলে শুক্রবার দীর্ঘ সময় ধরে কালচিনির বিডিও অফিস চত্বরে বিক্ষোভ প্রদর্শন করলেন পশ্চিমবঙ্গ খেত মজুর সমিতি ও জব কার্ড অধিকার মঞ্চের সদস্যরা। ওই দুই সংগঠনের অভিযোগ ১০০ দিনের কাজ করতে ইচ্ছুক সাধারণ মানুষ জব কার্ডের বিষয়ে কিছুই জানেন না। ফলে তাঁরা ১০০ দিনের কাজের আবেদন জানাতে পারছেন না। এই সুযোগে বিভিন্ন গ্ৰাম পঞ্চায়েতে ১০০ দিনের কাজে ব্যপক দুর্নীতি চলছে দীর্ঘ দিন ধরে। ব্লক প্রশাসনের তরফে সরাসরি বাসিন্দাদের সচেতন করা হলে ১০০ দিনের কাজে দুর্নীতি কমবে বলে মনে করছেন ওই দুই সংগঠনের প্রতিনিধিরা। যদিও ব্লক প্রশাসন এমন অভিযোগ একেবারেই ভিত্তিহীন বলে পালটা দাবি করা হয়েছে।

শুক্রবার দুপুরে কালচিনি ব্লকের বিভিন্ন গ্ৰাম পঞ্চায়েত এলাকার কয়েকশো বাসিন্দা কে নিয়ে ওই দুই সংগঠনের তরফে মিছিল করা হয়। মিছিলটি কালচিনির রবি-ভানু-বিরসা ময়দান থেকে শুরু হয়ে বিভিন্ন এলাকা পরিক্রমা করে কালচিনির বিডিও অফিসে শেষ হয়। এরপর সেখানে তুমুল বিক্ষোভ প্রদর্শন চলে। পড়ে কালচিনির যুগ্ম বিডিও সুশান্ত বর্মনকে আন্দোলনকারীরা স্মারকলিপি দেন।

- Advertisement -

পশ্চিমবঙ্গ খেত মজুর সমিতির আলিপুরদুয়ার জেলা প্রতিনিধি বিনয় কেরকেট্টা বলেন, ‘জব কার্ড মানুষের অধিকার ওই অধিকার থেকে মানুষকে বঞ্চিত হতে হচ্ছে। বেশির ভাগ মানুষ জানেন না জব কার্ডের আবেদন ও ১০০ দিনের কাজের আবেদন কিভাবে করতে হয়। ফলে যাদের প্রকৃত অর্থে ১০০ দিনের কাজের প্রয়োজন তাঁরা কাজ পাচ্ছেন না। এই দায় প্রশাসন এড়িয়ে যেতে পারে না।’

জব কার্ড অধিকার মঞ্চের তরফে সাকিল রিজু, জুঁই কোলে প্রমুখ বলেন, ‘২০০৫ সাল থেকে ১০০ দিনের প্রকল্প চালু হয়েছে। এত বছর বাদেও সাধারণ মানুষের জব কার্ড সম্পর্কে কোন ধারনা তৈরি হয়নি। সাধারন মানুষ তাঁদের মৌলিক অধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। আমরা চাই প্রশাসনের তরফে প্রত্যেক গ্ৰামে জব কার্ড ও ১০০ দিনের কাজ নিয়ে সচেতনতা শিবিরের আয়োজন করুক। তাঁরা বলেন এদিন ব্লকের প্রচুর মানুষ ১০০ দিনের কাজের জন্য বিডিও অফিসে আবেদনপত্র জমা দিয়েছেন।‘

এবিষয়ে কালচিনির যুগ্ম বিডিও সুশান্ত বর্মন বলেন, ‘প্রশাসনের তরফে গ্ৰাম সভা, সোস্যাল অডিটের মাধ্যমে সারা বছর ধরে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে প্রচার চালানো হয়। এছাড়াও বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন প্রশাসনের সহযোগিতায় এবিষয়ে প্রচার চালায়। মাঝে মধ্যে দেওয়াল লিখনের মাধ্যমে মানুষকে সচেতন করা হয়।‘ তিনি জানান, দুই সংগঠনের দাবি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হবে। এদিন যাঁরা ১০০ দিনের কাজের দাবি জানিয়েছেন, তাঁদের আবেদনপত্র সংশ্নিষ্ট গ্ৰাম পঞ্চায়েতে পাঠানো হবে। প্রশাসনের আরও দাবি, দুয়ারে সরকার কর্মসূচির মাধ্যমেও ১০০ দিনের কাজের প্রচার চলছে সাথে কাজের কাজ আবেদনপত্র গ্ৰহন করা হচ্ছে।