বকেয়া বেতনের দাবিতে গাজোল টোলপ্লাজাকর্মীদের বিক্ষোভ

209

গাজোল: বোনাস সহ বকেয়া বেতন প্রদানের দাবিতে বুধবার গাজোল টোলপ্লাজা অফিসের সামনে বিক্ষোভ দেখালেন টোলপ্লাজা শ্রমিকরা। তৃণমূল কংগ্রেসের শ্রমিক সংগঠন আইএনটিটিইউসি-র ব্লক সভাপতি অরবিন্দ ঘোষের নেতৃত্বে কর্মসূচি পালন করা হয়। কনকনে ঠাণ্ডাকে উপেক্ষা করে সকাল সাতটা থেকে গেটের সামনে অবস্থান বিক্ষোভ শুরু হয়। যদিও ঘন্টা তিনেক অবস্থান চলার পর টোলপ্লাজার আধিকারিকদের সঙ্গে আলোচনায় অংশ নিয়ে সমস্যা সমাধানের আশ্বাস পাওয়ার পর বেলা এগারোটা নাগাদ অবস্থান-বিক্ষোভ প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়।

আইএনটিটিইউসি ব্লক সভাপতি অরবিন্দ ঘোষ জানান, ফারাক্কা-রায়গঞ্জ হাইওয়ে লিমিটেডের অধীনে রয়েছে এই টোলপ্লাজা। আগে এর দায়িত্ব ছিল এইচসিসি কোম্পানি। কিন্তু গত সেপ্টেম্বর মাস থেকে এটির দায়িত্ব নিয়েছে কিউব কোম্পানি। তারা দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে এই টোলপ্লাজার প্রায় সাড়ে তিনশ কর্মীর সেপ্টেম্বর মাসের বেতন এবং বোনাস বাকি রয়েছে। বকেয়া বেতন এবং বোনাসের দাবিতে টোলপ্লাজা কর্তৃপক্ষকে বেশ কয়েকবার চিঠি দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তারপরেও কোন কাজ না হওয়াতে গত পরশুদিন চিঠি দিয়ে দুদিনের মধ্যে সমস্যার সমাধান না হলে এদিন থেকে অবস্থান বিক্ষোভের হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়। এরপর এদিন সকাল সাতটা থেকে অফিসের গেটের সামনে শুরু হয় শান্তিপূর্ণভাবে অবস্থান বিক্ষোভ কর্মসূচি। বেশ কিছুক্ষণ অবস্থান চলার পর টোলপ্লাজা কর্তৃপক্ষ আমাদের সঙ্গে আলোচনায় বসেন। আলোচনায় ঠিক হয়েছে আগামী ৪ জানুয়ারি সমস্ত বিষয় নিয়ে ইউনিয়ন, ভেন্ডার এবং টোলপ্লাজা কর্তৃপক্ষ আলোচনায় বসবে। সেই বৈঠকে সমস্ত বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে। এছাড়াও শ্রমিকদের বেতন এবং বোনাস অতি দ্রুত মিটিয়ে দেওয়া হবে। টোলপ্লাজা কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে এই আশ্বাস পাওয়ার পর এদিনের মতো আন্দোলন প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়েছে। তবে সব সমস্যার যদি সমাধান না হয় তাহলে আগামিদিনে আবার আন্দোলনে নামা হবে।

- Advertisement -

টোলপ্লাজার প্রজেক্ট ম্যানেজার মনোজ কুমার তিওয়ারি জানান, আগে এটি এইচসিসি কোম্পানির অধীনে ছিল। বর্তমানে দায়িত্বে রয়েছে কিউব কোম্পানি। গত সেপ্টেম্বর মাসে এটি হস্তান্তর হয়। সেই সময়ে হিসেব জনিত কিছু কারণের জন্য সেপ্টেম্বর মাসের বেতন সময় মত প্রদান করা সম্ভব হয়নি। কিন্তু তার পরে প্রত্যেক মাসের বেতন প্রথম সপ্তাহের মধ্যেই দিয়ে দেওয়া হয়েছে। এদিন শ্রমিকদের পক্ষে দাবি জানানো হয়েছিল সেপ্টেম্বর মাসের বেতন অবিলম্বে প্রদান করতে হবে। আমরা এই বিষয় নিয়ে কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলেছি। তারাও আশ্বাস দিয়েছেন আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহের মধ্যে বেতন মিটিয়ে দেওয়া হবে। এই বিষয় নিয়ে আগামী ৪ জানুয়ারি শ্রমিক সংগঠনের সঙ্গে বৈঠকে বসা হবে। সেই বৈঠকে আলোচনার মাধ্যমে সব সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে বলে তারা মনে করছেন।