স্কুলের বিরুদ্ধে একাধিক অনিয়মের অভিযোগ, প্রশ্নের মুখে কর্তৃপক্ষ

340

রায়গঞ্জ, ১১ ফেব্রুয়ারিঃ রায়গঞ্জের দেবীনগর কৈলাসচন্দ্র রাধারানী বিদ্যাপীঠের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে একাধিক অনিয়মের অভিযোগ উঠল। মঙ্গলবার উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জের কর্ণজোড়ায় জেলা স্কুল পরিদর্শকের দপ্তরে স্মারকলিপি জমা দিয়ে ঘটনার তদন্তের দাবিতে বিদ্যালয়ের পড়ুয়াদের অভিভাবকরা সরব হলেন। অভিযোগ, সরকারি সাহায্যপ্রাপ্ত কৈলাসচন্দ্র রাধারানী বিদ্যাপীঠ কর্তৃপক্ষ ভরতির সময় ছাত্র-ছাত্রীদের কাছ থেকে সরকারিভাবে বেঁধে দেওয়া ফিস ২৪০ টাকার পরিবর্তে ৫৩০-৬৪০ টাকা পর্যন্ত নিচ্ছে। এছাড়াও পড়ুয়াদের থেকে অতিরিক্ত অর্থও নেওয়া হচ্ছে। এমনকি অডিটও করানো হচ্ছে না। আরও একাধিক অভিযোগ এনে এদিন স্মারকলিপি জমা দেওয়া হয়েছে।

অভিভাবকদের অভিযোগ, স্কুল ক্যাম্পাসের প্রবেশদ্বারে জাতীয় সড়কের কিছু অংশ দখল করে বেআইনিভাবে প্রাচীর তৈরি করা হয়েছে। সেটি তৈরির জন্য সরকারিভাবে কোনও টেন্ডার ডাকা হয়নি। ২০১৩ সালের নিয়ম অনুযায়ী স্কুলের অর্থ খরচ করতে হলে, স্কুলের প্রধান শিক্ষক, সেক্রেটারি, বিদ্যালয় পরিচালন এবং উন্নয়ন সমিতির সভাপতির স্বাক্ষর থাকা বাধ্যতামূলক। সভাপতি না থাকলে সংশ্লিষ্ট স্কুল পরিদর্শক বা প্রশাসনিক আধিকারিকের স্বাক্ষর থাকা বাধ্যতামূলক। বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সকল নিয়মকে উল্লঙ্ঘন করে ১জন সহকারি শিক্ষককে দিয়ে স্বাক্ষর করিয়ে সকল কাজ করে নিচ্ছে। সেটি পুরোপুরি নিয়ম বিরুদ্ধ বলে অভিভাবকদের অভিযোগ। বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত ছাত্র-ছাত্রীদের কাছ থেকে ৩০০ থেকে ৪০০ টাকা পর্যন্ত ফাইন নেওয়া হচ্ছে বলেও অভিযোগ করা হয়েছে। এছাড়াও বিদ্যালয়ে লক্ষ লক্ষ টাকার উন্নয়নমূলক কাজ হলেও, সেগুলির বেশীরভাগেরই কোনও টেন্ডার ডাকা হচ্ছে না। বিষয়টি নিয়ে রাজ্য শিক্ষা দপ্তরেও অভিযোগ জানানো হয়েছে। দ্রুত ঘটনার তদন্ত না করা হলে, অভিভাবকরা পরবর্তীতে বৃহত্তর আন্দোলনে নামবেন বলে হুমকি দিয়েছেন।

- Advertisement -

স্কুলের প্রধান শিক্ষক অনুপস্থিত থাকায় এদিন সহকারী প্রধান শিক্ষককে স্মারকলিপি জমা দেওয়া হয়েছে। অতিরিক্ষ স্কুল ফি নেওয়ার ফলে, দরিদ্র পরিবারের পড়ুয়ারা বাড়তি টাকার চাপে চরম বিপাকে পড়েছেন। উত্তর দিনাজপুরের জেলা স্কুল পরিদর্শক নিতাইচন্দ্র দাস জানিয়েছেন, তিনি অভিযোগের ভিত্তিতে বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করছেন। দেবীনগর কৈলাসচন্দ্র রাধারানী বিদ্যাপীঠের প্রধান শিক্ষক উৎপল দত্ত অবশ্য অভিভাবকদের সমস্ত অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছেন।