ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট করোনায় আক্রান্ত, সিল করা হল মহকুমা শাসকের দপ্তর

দূর্গাপুর: পশ্চিম বর্ধমান জেলার দূর্গাপুরের মহকুমা শাসকের দপ্তরের একজন ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হলেন।

এর জেরে মহকুমা শাসকের দপ্তর সহ গোটা প্রশাসনিক ভবনে শুক্রবার থেকে সিল করে দেওয়া হয়েছে। এদিন এই মর্মে দূর্গাপুরের মহকুমা শাসক অনির্বাণ কোলে একটি নোটিশ জারি করেছেন।

- Advertisement -

সেই নোটিশে আরও বলা হয়েছে, আগামী সোমবার পর্যন্ত দপ্তর বন্ধ থাকবে। মঙ্গলবার থেকে দপ্তর নিয়মমাফিক খুলবে। করোনা আক্রান্ত ওই ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট জেলার ডেপুটি কালেক্টর পদেও রয়েছেন বলে প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে।

কয়েকদিন ধরেই তিনি জ্বরে ভুগছিলেন। বৃহস্পতিবার তাঁকে দূর্গাপুরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। করোনার বেশকিছু উপসর্গ দেখা দেওয়ায় ওই হাসপাতালের তরফে তার লালা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়।শুক্রবার সকালে লালা পরীক্ষার রিপোর্ট এলে জানা যায় যে, তিনি করোনায় আক্রান্ত। রিপোর্ট পজিটিভ আসায় এদিনই তাঁকে দূর্গাপুরের কোভিড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মহকুমা শাসকের দপ্তরের আধিকারিকের করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবরে অন্য আধিকারিক কর্মী ও দপ্তরে আসা সাধারণ মানুষের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে৷  এই খবর আসায় তৎপরতা শুরু হয় প্রশাসনিক মহলেও। সমস্ত দপ্তর আগামী সোমবার পর্যন্ত সিল করা হয়েছে বলে শুক্রবার জানিয়েছেন মহকুমা শাসক অনির্বান কোলে।

জেলা শাসকের নির্দেশ অনুযায়ী ইতিমধ্যেই অফিস স্যানিটাইজ করার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। উল্লেখ্য, মহকুমা শাসকের দপ্তরের পাশাপাশি এই ভবনে রয়েছে মহকুমা আদালত। মহকুমা শাসক এসিজেএমকে অনুরোধ করেছেন, যাতে আদালতও এই কদিন বন্ধ রাখা হয়।

এছাড়াও এই ভবনে পরিবহন দপ্তরের কার্যালয়, পোস্ট অফিস সহ বেশ কিছু সরকারি দপ্তর রয়েছে। সব কার্যালয়ই আগামী সোমবার পর্যন্ত বন্ধ থাকবে বলে জানানো হয়েছে। মহকুমা শাসক আরও জানান যে, দপ্তরের সব কর্মী সেল্ফ বা হোম কোয়ারান্টিনে যাচ্ছেন। এদিনই দপ্তরের সব কর্মীর সোয়াব বা লালা পরীক্ষার জন্য নেওয়া হচ্ছে।

পাশাপাশি ওই ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেটের সংস্পর্শে যারা এসেছেন, তাঁদের চিহ্নিতকরনের প্রক্রিয়া চলছে বলে মহকুমাশাসক জানিয়েছেন। তবে মানুষ যাতে অযথা আতঙ্কিত না হন, সেই আবেদনও করেছেন তিনি।