রাস্তায় রাস্তায় ঘুগনি বিক্রির পাশাপাশি অনুশীলণ, সাফল্য় পেলেন শ্রীলেখা

96

বর্ধমান: প্রতিবন্ধকতা এড়িয়ে অনূর্ধ্ব ১৯ মহিলা ক্রিকেটের চ্যালেঞ্জার ট্রফিতে ভারতীয় (এ) দলের হয়ে খেলার সুযোগ পেলেন পূর্ব বর্ধমানের ভাতারের বাসিন্দা শ্রীলেখা রায়। ছোট থেকেই ক্রিকেটের প্রতি আগ্রহ দরিদ্র পরিবারের বেড়ে ওঠা শ্রীলেখার। দিব্য চলছিল অনুশীলন। তবে, বছর আট আগে তাঁর বাবার মৃত্য়ুর পর ক্রিকেটার হওয়ার স্বপ্নে প্রতিবন্ধকতা দেখা দেয়। যদিও হাল ছাড়েননি শ্রীলেখা। রাস্তায় ঘুরে ঘুরে ঘুগনি বিক্রি করে সংসারের দায়িত্ব সামলানোর পাশাপাশি অনুশীলনও চালিয়ে গিয়েছেন সমানভাবে।

২০১৫ সালে ভাতারের অগ্রগামী ক্রিকেট অ্যাকাডেমি থেকে অনুশীলন নিতে শুরু করেন তিনি। প্রথম জেলাস্তরের ক্রিকেট প্রতিযোগীতায় ফিল্ডিং করার সুযোগ পান। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে শ্রীলেখার প্রতিভা অগ্রগামী ক্রিকেট অ্যাকাডেমির প্রশিক্ষকদের নজর কাড়তে শুরু করে। এরপর প্রশিক্ষকদের অনুপ্রেরণায় কয়েক মাস দুর্গাপুরে প্রশিক্ষণ নিয়ে কলকাতার উদ্দেশ্যে পাড়ি দেন। এরপরই একের পর এক সফলতা।

- Advertisement -

প্রথমে সিএবি লীগের হয়ে মিজোরামে ২০১৭-২০১৮ বর্ষে অনূর্ধ্ব-১৯ বাংলার হয়ে খেলার সুযোগ পান। গত সেপ্টেম্বর মাসে অনূর্ধ্ব-১৯ বাংলার হয়ে পাঁচটি এক দিনের ম্যাচে খেলার সুযোগ পেয়েছেন। একটি ম্যাচে ৩০ বলে ২১ রান করে নট আউট থাকার পাশাপাশি ৬ ওভার বল করে একটি মেডেন ওভার সহ মাত্র ৯ রান দিয়ে ২টি উইকেট নেওয়ার রেকর্ড রয়েছে তাঁর। এতেই নির্বাচকদের নজর কাড়েন তিনি। অবশেষে অনূর্ধ্ব-১৯ মহিলা ক্রিকেট চ্যালেঞ্জার ট্রফিতে ভারতের (এ) দলের হয়ে খেলার সুযোগ পান তিনি। শ্রীলেখা বলেন, ‘আগামীতে ভারতের হয়ে আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার স্বপ্ন রয়েছে।’

শ্রীলেখার মা রেখা রায় বলেন, ‘মেয়েকে ভারতের জার্সিতে ক্রিকেটের ময়দানে দেখতে চাই।’