করোনা আক্রান্ত তৃণমূল বিধায়কের শারীরিক অবস্থা সংকটজনক

অনলাইন ডেস্ক: করোনা আক্রান্ত এগরার তৃণমূল বিধায়ক সমরেশ দাসের শারীরিক অবস্থা সংকটজনক। তিনি কলকাতার বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। ভেন্টিলেশনে রাখা হয়েছে বর্ষীয়ান এই বিধায়ককে।

১৮ জুলাই সমরেশবাবুর দেহে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়ে। সেই সময় তাঁকে পাঁশকুড়ার বড় মা কোভিড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তবে শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাঁকে বেলেঘাটা আইডিতে নিয়ে আসা হয়। এরপর থেকে তিনি আইডিতে চিকিৎসাধীন।

- Advertisement -

হৃদযন্ত্রে সমস্যার পাশাপাশি হাঁপানির উপসর্গ রয়েছে সমরেশবাবুর। তাই সত্তরোর্ধ বিধায়কের শারীরিক অবস্থার প্রতি ২৪ ঘণ্টা নজর রাখছেন ডাক্তাররা। হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, আপাতত তাঁকে ভেন্টিলেশনে রাখা হয়েছে। পাশাপাশি চিকিৎসকদের একটি দল বিধায়কের ওপর ২৪ ঘণ্টা নজর রাখছেন।

প্রসঙ্গত, এর আগে একাধিক তৃণমূল বিধায়ক করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। গত মঙ্গলবার দিনহাটার বিধায়ক উদয়ন গুহ করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। ওইদিন রাতে তিনি নিজেই বিষয়টি সোশ্যাল মিডিয়ায় জানান। ফেসবুকে ‘আমি করোনা পজেটিভ’ লিখে পোস্ট করেন তিনি। দক্ষিণ দিনাজপুরের কুমারগঞ্জের বিধায়ক তোরাফ হোসেন মণ্ডলও করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

মুর্শিদাবাদের রঘুনাথগঞ্জের বিধায়ক মহম্মদ আখরুজ্জামানের করোনা রিপোর্টও পজিটিভ আসে। পরে তাঁর স্ত্রী, পুত্র, গাড়ির চালক ও নিরাপত্তারক্ষীর শরীরেও করোনার সংক্রমণ মেলে। তাঁরা প্রত্যেকেই কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তবে গতকালই তাঁরা সকলেই সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। দক্ষিণ দিনাজপুর হরিরামপুরের সিপিএম বিধায়ক রফিকুল ইসলামও করোনা আক্রান্ত অবস্থায় বালুরঘাট কোভিড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু ও তাঁর পরিবারের কয়েকজন সদস্য করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। তবে তাঁরাও সুস্থ হয়ে গিয়েছেন। এদিকে করোনা আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন ফলতার তৃণমূল বিধায়ক তমোনাশ ঘোষ। পানিহাটির বিধায়ক তথা বিধানসভার তৃণমূলের মুখ্য সচেতক নির্মল ঘোষও করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন। তবে তিনিও সুস্থ হয়ে উঠেছেন। মালদার বৈষ্ণবনগরের বিজেপি বিধায়কও করোনায় আক্রান্ত হন।