টিকিট পাননি, নির্দল হিসেবে ভোটে লড়বেন এই ক্ষুব্ধ তৃণমূল নেতা

81

মুর্শিদাবাদ: রঘুনাথগঞ্জের তৃণমূল কংগ্রেসের মুর্শিদাবাদ জেলা পরিষদের সদস্য নাসির শেখ বুধবার নির্দল প্রার্থী হিসেবে বিধানসভা নির্বাচনে লড়ার কথা ঘোষণা করলেন। গত ৬ মার্চ তৃণমূলের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষণা করে কংগ্রেসে যোগদান করেন তিনি। এদিন রঘুনাথগঞ্জে নিজের কর্মী সমর্থকদের নিয়ে ঘরোয়া আলোচনার পর নাসির নির্দল প্রার্থী হিসেবে লড়ার কথা ঘোষণা করেন। সূত্রের খবর, কংগ্রেসে যোগদানের আগে নাসিরকে মৌখিকভাবে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল সে ফিরে এলে তাকে রঘুনাথগঞ্জ বিধানসভা থেকে কংগ্রেসের প্রার্থী করা হবে। কিন্তু স্থানীয় ব্লক সভাপতি আবুল কাশেমকে কংগ্রেসের টিকিট দেয়। এরপরই নির্দল প্রার্থী হিসেবে লড়াই করার সিদ্ধান্ত নেন নাসির।

নাসির বলেন, ‘রঘুনাথগঞ্জের তৃণমূল প্রার্থীর সঙ্গে আমার দীর্ঘদিনের মতানৈক্য রয়েছে। মূলত তার জন্যই আমি তৃণমূল ত্যাগ করেছিলাম। প্রদেশ কংগ্রেস নেতৃত্ব সহ অধীর রঞ্জন চৌধুরী আমাকে মৌখিকভাবে আশ্বাস দিয়েছিল কংগ্রেসের প্রার্থী করার। কিন্তু কোনও এক অজ্ঞাত কারণে আমার নাম বাদ দেওয়া হয়েছে। যদিও রঘুনাথগঞ্জের হাজার হাজার মানুষ এমন একটি মুখ খুঁজছিলেন যিনি তৃণমূল প্রার্থীকে কড়া প্রতিদ্বন্দ্বিতার মধ্যে ফেলতে পারবেন।’

- Advertisement -

তিনি আরও বলেন, ‘রঘুনাথগঞ্জে জাতীয় কংগ্রেস এবং তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থীরা হাতে হাত মিলিয়ে লড়াই করছে। ওরা সাধারণ মানুষকে ভাঁওতা দিচ্ছে। তাই রঘুনাথগঞ্জের ১২টি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার মানুষের আশীর্বাদ নিয়ে আমি ভোটে লড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। নাসিরের দাবি, আজ তাঁর ডাকা সভাতে রঘুনাথগঞ্জের ২৪৬টি বুথ থেকে কয়েক হাজার কর্মী সমর্থক হাজির হয়েছিল। করোনা অতিমারির সময় আমি কয়েকহাজার মানুষকে যেমন নিয়মিত খাবার দিয়েছি তেমনই প্রায় ১৬ হাজার পরিবারকে নিয়মিত ওষুধের যোগান দিয়েছি। আমার ধারণা সাধারণ মানুষ এসব ভোলেনি। তাই তাদের আশীর্বাদে আমি ভোট পাবো বলে আমার ধারণা।’

রঘুনাথগঞ্জ বিধান সভার প্রার্থী আকরুজাম্মান বলেন, ‘কে নির্দল থেকে দাঁড়ালো, আর কে কোন দলে গেল আর এলো তাতে আমাদের কিছু যায় আসে না। মানুষ মমতা ব্যানার্জীর উন্নয়ন দেখেছে। মানুষ সময়ে ঠিক বিচার করবে।’