মেখলিগঞ্জের নিজতরফে বেহাল রাস্তা নিয়ে ক্ষোভ

269

গৌতম সরকার, মেখলিগঞ্জ: বেহাল রাস্তা নিয়ে অনেকদিন ধরেই মেখলিগঞ্জ ব্লকের নিজতরফ গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার ১২৫ খড়খড়িয়া সহ সংলগ্ন এলাকার মানুষের মধ্যে ক্ষোভ রয়েছে। বুধবার ওই এলাকা পরিদর্শনে যান চ্যাংরাবান্ধা উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান পরেশচন্দ্র অধিকারী।

স্থানীয়দের দাবি, মেখলিগঞ্জ হাসপাতালের উলটোদিক থেকে যে রাস্তাটি নিজতরফের ভাণ্ডানি পর্যন্ত গিয়েছে সেই রাস্তাটি সম্পূর্ণ অংশ নতুনভাবে পাকা করার পাশাপাশি রাস্তার দু’পাশ চওড়া করতে হবে। কারণ এই রাস্তাটির যথেষ্ট গুরুত্ব রয়েছে। দাবির কথা অনেকদিন ধরে বিভিন্ন মহলে জানিয়ে আসলেও কোনও কাজ হচ্ছেনা বলে অভিযোগ। এইনিয়ে পুজোর আগে আন্দোলনের কথা ভাবছিলেন একাংশ। এদিন পরেশবাবু এলাকা পরিদর্শনে গেলে স্থানীয় বাসিন্দারা তাঁদের নানা সমস্যার পাশাপাশি বেহাল রাস্তা মেরামতের দাবিও জানান। রাস্তা ঘুরে দেখে বিষয়টি নিয়ে যথাযথ পদক্ষেপ করার আশ্বাস দেন পরেশবাবু।

- Advertisement -

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, এই রাস্তা দিয়ে নিজতরফ, হেলাপাকড়ি সহ বিভিন্ন এলাকার বহু মানুষ মেখলিগঞ্জ হাসপাতাল এবং বাজারে যান। বর্তমানে অনেক জায়গায় রাস্তার অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া মুশকিল। জল কাদায় চলাচল করাই সেখানে সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। অনেকসময় কৃষকদেরকে এই বেহাল রাস্তা দিয়ে কৃষিপণ্য বিক্রির জন্য যথাসময়ে বাজারে নিয়ে যেতেও সমস্যা হচ্ছে। তাই এই রাস্তাটি চওড়া এবং মেরামত করা হলে বহু মানুষ উপকৃত হবেন বলে এলাকার মানুষ মনে করছেন। তাঁদের দাবি, রাস্তাটি এমনভাবে তৈরি করা হোক যাতে একসঙ্গে দুটি গাড়ি চলাচল করতে পারে। তবে রাস্তা চওড়া করতে হলে দু’পাশে জমির প্রয়োজন রয়েছে। স্থানীয় বাসিন্দা অনিল বিশ্বাস, উপেন রায়, শ্যামল সরকার প্রমূখ বলেন, রাস্তাটির বর্তমানে খুব খারাপ অবস্থা। যে কারণে এই রাস্তার উপর দিয়ে চলাচল করতে দারুণ সমস্যা হচ্ছে। দ্রুত রাস্তাটি চওড়া ও মেরামত করা দরকার। বিষয়টি চ্যাংরাবান্ধা উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যানকেও এদিন জানানো হয়েছে।

এই বিষয়ে চ্যাংরাবান্ধা উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান পরেশচন্দ্র অধিকারী বলেন, ‘নিজতরফ গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় ১২৫ খড়খড়িয়া এলাকার ওই রাস্তাটির অবস্থা সত্যিই খারাপ। স্থানীয়রা রাস্তাটি মেরামতের দাবির কথা আমাকে জানিয়েছেন। এই বিষয়ে একটি পরিকল্পনা তৈরি করে শীঘ্রই রাজ্য সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তরে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে। এছাড়াও স্থানীয়রা আরও কিছু দাবি ও সমস্যার কথা তুলে ধরেছেন। সেগুলি নিয়েও আমার তরফে চেষ্টার কোনও ত্রুটি রাখা হবে না।’