বেহাল ঐতিহ্যবাহী মাঠ, সংস্কারের দাবি বাসিন্দাদের

94

রায়গঞ্জ: রায়গঞ্জ পুরসভার ২২ নম্বর ওয়ার্ডে রয়েছে বন্দর শ্মশান ফুটবল মাঠ। কিন্তু মাঠটি দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার না হওয়ায় বেহাল হয়ে পড়েছে। রায়গঞ্জ পুরসভার কয়েকবছর আগে মাঠের চারিদিকে আলোর ব্যবস্থা করলেও সংস্কারের অভাবে মাঠটি বেহাল হয়ে পড়েছে। ফলে খেলোয়াড়রা মাঠমুখী হচ্ছেন না। মাঠের চারিদিকে নোংরা আবর্জনা ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকায় যুবকদের পাশাপাশি বয়স্ক মানুষেরা এখন আর প্রাতঃভ্রমণ এবং সান্ধ্য ভ্রমণে যান না। আগে সকাল-বিকেল নিয়মিত ফুটবল প্র‍্যাকটিস করত প্লেয়াররা। এছাড়াও ক্রিকেট এবং অ্যাথলেটিক্স প্র‍্যাকটিস চলত সারাবছর ধরে। বিভিন্ন টুর্ণামেন্ট গুলি হত এখানে। বেশ কয়েকবছর ধরে সব বন্ধ। মাঠের বেহাল অবস্থার কথা স্বীকার করেছেন স্থানীয় বাসিন্দা থেকে কাউন্সিলার এবং বীরনগর স্পোর্টিং অ্যাসোসিয়েশনের কর্মকর্তারা।

রায়গঞ্জ শহরের ঐতিহ্যবাহী এই মাঠটির মালিকানা রয়েছে রায়গঞ্জ ইন্সটিটিউটের। তবে দেখভাল করে বীরনগর স্পোটিং অ্যাসোসিয়েশন। বীরনগর স্পোর্টিং অ্যাসোসিয়েশনের ফুটবল টিমের সদস্যরা এখানেই সারাবছর প্র‍্যাকটিস করত। স্থানীয় বাসিন্দা সন্তু দে জানান, মাঠটি রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে বেহাল হয়ে পড়েছে। আগে বিভিন্ন অসামাজিক কাজ হতো রাতে, পুরসভা উদ্যোগ নিয়ে লাইটের ব্যবস্থা করে দিয়েছে। তবে খেলাধুলো কিছুই হয় না। এখন দরকার সীমানা প্রাচীর। বাইরের গাড়ি মাঠের ভিতরে ঢুকে মাঠটি নষ্ট করে দিয়েছে। প্রাচীর হলেই গাড়ি ঢোকা বন্ধ হবে।

- Advertisement -

বীরনগর স্পোর্টিং অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক ইন্দ্রজিত সাহা বলেন, ‘আগে আমাদের ছেলেরা সারা বছর প্র‍্যাকটিস করত। কিন্তু মাঠের অবস্থা বেহাল হয়ে পড়ায় এখন আর হয় না। আমরা ফুটবল কোচিং ক্যাম্প শুরু করেছিলাম, এখন বন্ধ। রায়গঞ্জ পুরসভা ও জেলা ক্রীড়া সংস্থা খেলার বিভিন্ন উপকরণ দিলেও মাঠের কারণে তা সম্ভব হচ্ছে না। মাঠটি রায়গঞ্জ ইন্সটিটিউটের হলেও আমরাই দেখভাল করি। এখন সংস্কার করা দরকার।’ কাউন্সিলার তপন দাস বলেন, ‘মাঠটির অবস্থা বেহাল বলে খেলাধুলো বন্ধ। মাঠটি পুরসভার না হলেও আমরা পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখি। তবে মাঠে অসামাজিক কাজকর্ম হয় কিনা তা দেখার দায়িত্ব পুলিশ প্রশাসনের।’