ব্রিগেডে দীনেশ-অর্জুন সখ্যতা

70
ফাইল ছবি।

কলকাতা: শত্রুর শত্রু অবশেষে মিত্র হলেন। দীনেশের জন্য অর্জুন দল ছেড়েছিলেন। সেই দীনেশ ত্রিবেদী ফিরেছেন বিজেপিতে। অন্যদিকে বিজেপিতে আগেই ঢুকেছেন অর্জুন সিং। প্রধানমন্ত্রীর সভায় এক ফ্রেমে ধরা দিলেন পুরনো দলের দুই প্রাক্তন প্রতিদ্বন্দ্বী। সখ্যতার বার্তা দিতে হাসি হাসি মুখে ক্যামেরার সামনে দাঁড়িয়ে পড়লেন অর্জুন-দীনেশ।

দুবছরেরও কম সময় আগে তণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ে কালীঘাটের বাড়িতে রাত পর্যন্ত বৈঠকে হাজির ছিলেন ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং। তার দুদিন আগেই লোকসভা ভোটে তণমূলের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হয়েছে। ব্যারাকপুরে ফের প্রার্থী হিসেবে মমতা তখন ভরসা রেখেছেন দীনেশ ত্রিবেদীর ওপর। সেখানেই আপত্তি ছিল অর্জুনের। তিনি সরাসরি তাঁর আপত্তি জানান তৃণমূল যুবর সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে। এরপরই তাঁকে কালীঘাটের বাড়িতে ডেকে পাঠান মমতা। রাত পর্যন্ত অর্জুনকে অনেক বোঝানোর চেষ্টা করেন মমতা। কিন্তু, দীনেশকে তিনি কোনওভাবেই মেনে নিতে রাজি হননি। পরের দিনই তণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার ঘোষণা করেন তিনি। মাঝে দেড় বছর তাঁদের মধ্যে সম্পর্ক ঠিক হয়েছে কি না, তা নিয়ে স্পষ্ট ধারণা কারও নেই। কিন্তু, রবিবার ব্রিগেডে দীনেশকে কাছে টেনে নিয়ে অর্জুন ঘোষণা করেন, দেখুন অর্জুন সিং ও দীনেশ ত্রিবেদি একই জায়গায় আছে।

- Advertisement -

শনিবারই দিল্লিতে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন দীনেশ ত্রিবেদী। রবিবার ব্রিগেড সমাবেশে তিনি হাজির হন। তিনি যখন মঞ্চে ওঠেন তখন ভাষণ দিচ্ছিলেন অর্জুন সিং। দীনেশ ত্রিবেদী মঞ্চে উঠে মুকুল রায়কে এড়িয়ে সোজা এগিয়ে যান দিলীপ ঘোষ, রূপা গঙ্গোপাধ্যায়দের দিকে। তণমূলে থাকার সময় মুকুল রায়ে সঙ্গে দীনেশের সম্পর্ক ভালো ছিল না বলেই সকলের জানা। এদিনও দীনেশকে দেখে মুকুল আসন থেকে উঠে দাঁড়ান। কিন্তু দীনেশ তাঁর কাছে না দাঁড়িয়ে সোজা চলে যান কৈলাস বিজয়বর্গীয়র কাছে। তাঁর সঙ্গে আলিঙ্গন করে ফিরে আসতেই অর্জুন ভাষণ থামিয়ে দীনেশকে ডাক দেন। এরপরই দীনেশের গলা জড়িয়ে অর্জুন বলেন, আমরা আবার একসঙ্গেই আছি।