ভুটানের নাগরিকদের নামে ট্রাক কিনছেন ভারতীয়রা

317

মোস্তাক মোরশেদ হোসেন, বীরপাড়া : ভারতীয়রা ভুটানের নাগরিকদের নামে ট্রাক কিনে ভারতে পণ্য পরিবহণ করছেন। এতে ভুটানের মাল বাংলাদেশে পরিবহণের ক্ষেত্রে বেশি লাভবান হচ্ছেন তাঁরা, এমনটাই অভিযোগ জানিয়েছে ভারতীয় ট্রাক মালিকদের সংগঠন। তাদের অভিযোগ, ভারত-ভুটান মৈত্রীর সম্পর্কের অপব্যবহার করে এক শ্রেণির ভারতীয় লাভের গুড় খাচ্ছেন। এতে লোকসান হচ্ছে ভারতীয় ট্রাক মালিকদেরই। বিষয়টি তাঁরা পরিবহণ দপ্তরের নজরে এনেছেন বলে জানান বীরপাড়া ট্রাক ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক উৎপল রায়।

আলিপুরদুয়ার জেলার বীরপাড়া ট্রাক ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের অভিযোগ, ভুটানের নাগরিকদের নামে ট্রাক কিনে পণ্য পরিবহণে সুবিধা পাওয়া, বীরপাড়া সহ ডুয়ার্সের বিভিন্ন এলাকায় পরিবহণ ব্যবসার অন্যতম কায়দা হয়ে দাঁড়িয়েছে। অন্যদিকে পরিবহণ দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, কোনো ভারতীয় নাগরিক ট্রাক, ডাম্পার বা অন্য কোনো যানবাহন কিনে ভুটানের রেজিস্ট্রেশন পেতে পারেন না। একমাত্র ভুটানের নাগরিকরাই ওই সুবিধা ভোগ করতে পারেন। এক্ষেত্রে ডুয়ার্সের ভুটান সীমান্ত ঘেঁষা এলাকার ভারতীয় বাসিন্দাদের অনেকেই চালাকি করছেন, অভিযোগ ভারতীয় ট্রাক মালিকদের। বীরপাড়া ট্রাক ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি উৎপল রায় বলেন, এক্ষেত্রে ভুটানের নাগরিকদের হাত করে তাঁদের নামেই ট্রাক কিনছেন এদেশের নাগরিকরা। লাভের গুড়ের বেশিটা খাচ্ছেন ভারতের স্পনসররা। যাঁর নামে ট্রাকের রেজিস্ট্রেশন করা হচ্ছে, তিনিও কিছু আর্থিক সুবিধা পাচ্ছেন। তবে যিনি ট্রাক কেনার জন্য টাকা বিনিয়োগ করেছেন, তিনিই মূল ফায়দা লুটছেন।

স্থানীয় সূত্রে খবর, বীরপাড়া ও সংলগ্ন এলাকার দলমোর, সিংঘানিয়া, রামঝোরা, লঙ্কাপাড়া এলাকায় এমন অনেক বাসিন্দা রয়েছেন যাঁরা এক বা একাধিক ট্রাক ও ডাম্পারের মালিক। কিন্তু ওইসব গাড়ির বেশিরভাগেরই রেজিস্ট্রেশন ভুটানে করানো হয়েছে। ফলে ওই ট্রাক ও ডাম্পারগুলির বেশিরভাগ ভুটানের রেজিস্ট্রেশন ও নম্বর ব্যবহার করছে বলে অভিযোগ ভারতীয় ট্রাক মালিকদের। ট্রাক মালিকদের বীরপাড়ার সংগঠনের সভাপতি মোতি খানের অভিযোগ, অত্যন্ত চালাকির সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে ওই কারবার চলছে।

উৎপলবাবু আরও বলেন, ওই ট্রাক ও ডাম্পারগুলি মূলত ভুটান থেকে ডলোমাইট, বোল্ডার ইত্যাদি বাংলাদেশে পরিবহণ করে। কিন্তু সমস্যা হল, ভুটানের রেজিস্ট্রেশন করানো ট্রাক ও ডাম্পারগুলি ভারতের ভেতরেও এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় পণ্য পরিবহণ করছে যা সম্পূর্ণ বেআইনি। বিষয়টি নিয়ে আমাদের সংগঠনের তরফে এর আগে পরিবহণ দপ্তরে অভিযোগ জানানো হয়েছিল। তবে লাভ হয়নি। কিছুদিন আগেও জলপাইগুড়ি জেলার ময়নাগুড়িতে এভাবে বেআইনিভাবে পণ্য পরিবহণ করার সময় হাতেনাতে কয়েকটি ভুটানের রেজিস্ট্রেশনের ট্রাক আটক করা হয়েছিল।

বিষয়টি নিয়ে আলিপুরদুয়ারের আরটিও প্রবীণ লামা বলেন, কোনো ভারতীয় নাগরিকের গাড়ির জন্য ভুটানের রেজিস্ট্রেশন পাওয়ার নিয়ম নেই। তবে, ভারতের নাগরিকদের বিরুদ্ধে ভুটানের বাসিন্দার নামে ট্রাক-ডাম্পার কেনার অভিযোগ প্রসঙ্গে কোনো ব্যবস্থা নেওয়ার নিয়ম রয়েছে কি না, তা নিয়ে স্পষ্টভাবে কিছু জানাতে পারেননি তিনি। বিষয়টি নিয়ে খোঁজখবর নেওয়া হবে বলে আশ্বাস দেন প্রবীণবাবু।