বিজেপির কাছ থেকে ভোট ছিনিয়ে নেওয়ার হুঁশিয়ারি তৃণমূল সংখ্যালঘু সেলের

238

চাঁচল: বিজেপির কাছ থেকে ভোট ছিনিয়ে নেওয়ার হুঁশিয়ারি দিলেন মালদা জেলা তৃণমূল কংগ্রেস সংখ্যালঘু সেলের সভাপতি মোশারফ হোসেন। পাশাপাশি, বিজেপি ও বাংলায় নতুন ‘সম্ভাবনা’ আসাদউদ্দিন ওয়েইসির দল ‘মিম’কে একই মুদ্রার এপিঠ ওপিঠ বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

সোমবার চাঁচল-১ ব্লকের খরবা এগ্রিল হাইস্কুলে কর্মীসভার আয়োজন করে তৃণমূল কংগ্রেস সংখ্যালঘু সেল। সভায় উপস্থিত ছিলেন চাঁচোল-১ ব্লকের আটটি পঞ্চায়েত এলাকা থেকে প্রায় ৫০০ কর্মী। ছিলেন চাঁচল-১ ব্লক তৃণমূল কংগ্রেস সংখ্যালঘু সেলের সভাপতি সাজেদ সুলতান, সংখ্যালঘু সেলের জেলা কমিটির চেয়ারম্যান হাফেজ নজরুল ইসলাম, সভাপতি মোশারফ হোসেন, চাঁচল-১ ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি সচ্চিদানন্দ চক্রবর্তী, জেলার সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান, কল্যাণী ঘোষ, জেলা পরিষদের কর্মাধ্যক্ষ রফিকুল হোসেন, জেলা পরিষদ সদস্য সামিউল ইসলাম সহ আরও অনেকে।

- Advertisement -

একুশের নির্বাচনকে সামনে রেখে সংখ্যালঘুদের দায়িত্ব ও কর্তব্য কী, এ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেন সংগঠনের জেলা সভাপতি মোশারফ হোসেন। তিনি বলেন, ‘বিজেপি ও মিম একই মুদ্রার এপিঠ ওপিঠ। দুটোই সাম্প্রদায়িক দল।’ চাঁচলের কংগ্রেস মনোভাবাপন্ন মানুষকে সতর্ক করে দিয়ে তিনি বলেন, ‘এবারের একটিও ভোট যাতে তৃণমূল কংগ্রেস ছাড়া দলকে কেউ না দেয়। বিজেপিকে আমরা কেন্দ্রে সময় দিয়েছি। মানুষের দুর্ভোগ বেড়েছে। রাজ্যে আমরা বিজেপিকে সেই সুযোগ দেব না।’

অন্যদিকে, সংগঠনের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম বলেন, ‘একুশের বিধানসভা ভোট স্বাধীনতার লড়াইয়ের চেয়েও শক্ত। বাংলার মানুষকে স্বাধীনতার স্বাদ পুনরায় পেতে হলে বিজেপি সহ কংগ্রেস-সিপিএম জোট, মিম সবাইকে রুখে তৃতীয়বারের জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে মুখ্যমন্ত্রী করতে হবে।’ কেন্দ্রের কৃষি নীতি ও কৃষি আইনের সমালোচনা করে তিনি মুখ্যমন্ত্রীর সিঙ্গুর আন্দোলনের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে বলেন, ‘তৃণমূল সরকার এবং দল হিসেবে তৃণমূল কংগ্রেস চাষিদের পাশে রয়েছে।’