তুফানগঞ্জ ১০ মেঃ গোরুচুরির অভিযোগকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়ালো তুফানগঞ্জ থানার অন্তর্গত ধলপল ২ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের ছাট রামপুর গ্রামে। শুক্রবার সকাল ১১টা নাগাদ চার ব্যক্তি একটি ভুটভুটিতে করে গোরু নিয়ে তুফানগঞ্জ থেকে ধলপলের দিকে যাচ্ছিলেন। সেই সময় ছাট রামপুর গ্রামে তাঁদেরকে গোরুচোর সন্দেহে আটক করে স্থানীয়রা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় তুফানগঞ্জ থানার পুলিশ।

স্থানীয়দের অভিযোগ, সীমান্তবর্তী হওয়ায় বরাবরই ওই এলাকায় গোরুচোরদের দৌরাত্ম্য লক্ষ্য করা যায়। তবে ইদানিং গোরুচুরি অনেক বেড়েছে। পুলিশকে জানিয়েও কোনো লাভ হয়নি বলে তাঁদের অভিযোগ। তাই এদিন পুলিশকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে গ্রামবাসীরা। খুব শীঘ্রই মারমুখি হয়ে ওঠে তাঁরা। গ্রামবাসীরা পুলিশ কে লক্ষ্য করে বাঁশ দিয়ে মারতে শুরু করেন। চলে পাথর বৃষ্টি। এরপর কোচবিহার কোতয়ালি থানার আইসি সৌম্যজিৎ রায়ের  নেতৃত্বে  বিশাল পুলিশবাহিনী গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

ঘটনায় আহত হয়েছেন তুফানগঞ্জ থানার ওসি সৌমাল্য আইচ, এএসআই পরিমল রায়, সংবাদ মাধ্যমের প্রতিনিধি বাসুদেব ধর, সিভিক ভলেন্টিয়ার মুকুল বর্মন, ভ্যান চালক অপুল রায় সহ আরও কয়েকজন। ঘটনায় পুলিশের একটি গাড়ি, একটি স্কুটি এবং একটি ভ্যান ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সংবাদ মাধ্যমের প্রতিনিধি বাসুদেব ধর সহ ২ জন বর্তমানে তুফানগঞ্জ মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে এ ঘটনায় এখনও পর্যন্ত সাতজনকে আটক করা হয়েছে।