হার্টের অসুখে ভাজাভুজি নয়

অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ক্যাথ ল্যাব চিকিৎসকের দক্ষতার সাহায্যে বয়স্কদের হার্টের জটিল সমস্যার সমাধানে কমপ্লেক্স অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টির তুলনা নেইজানাচ্ছেন কনসালট্যান্ট ইন্টারভেনশনাল কার্ডিওলজিস্ট ডাঃ রঞ্জন শর্মা।

বয়স্কদের  ডায়াবিটিস ও ব্লাড প্রেসার থাকাটা স্বাভাবিক, বিশেষ করে সত্তর বছরের ঊর্ধ্বে। আর কায়িক শ্রমহীন জীবন হলে তো কথাই নেই। হার্টের অসুখের প্রবণতা খুবই বাড়ে। বেশির ভাগ মানুষ কোনও রকম শারীরিক অসুবিধে না হলে রেগুলার হেল্থ চেক আপ করেন না। তাই আচমকা হার্ট অ্যাটাক হলে রোগীর অবস্থা সংকটজনক হয়ে উঠতে পারে।

- Advertisement -

অসুখের কারণ

বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে রক্তবাহী ধমনীর মধ্যে চর্বির আস্তরণ জমতে থাকে। একে বলে অ্যাথেরোস্ক্লেরোসিস। বয়স ছাড়া বিষয়টি গতি বাড়িয়ে দেয় স্মোকিং, ওভার ওয়েট, এক্সারসাইজের অভাব, মানসিক চাপ, হাই ব্লাড প্রেশার, ডায়াবিটিস, বংশগত কারণ, ত্রুটিপূর্ণ খাদ্যাভ্যাস ইত্যাদি। ধমনীর ভিতর প্লেক জমতে শুরু করলে হার্টের পেশি প্রয়োজনীয় রক্তের অভাবে হাঁপিয়ে পড়ে, এর ফলেই হার্টের অসুখ হয়। বেশি বয়সে অনেকেরই ধমনীর প্রাচীরে জমা কোলেস্টেরলের প্লেক জমে পাথরের মতো শক্ত হয়ে যায়। এছাড়া বেশি বয়সে ডায়াবিটিস, হাই প্রেশার, ফুসফুসের দুর্বলতা সহ নানা শারীরিক সমস্যা থাকতে পারে। অনেকের আবার কিডনিও ঠিকমতো কাজ করে না। এই অবস্থায় হার্টের সঠিক চিকিৎসা না করলে রোগীর অবস্থা জটিল হয়ে পড়ে।

কমপ্লেক্স অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি

কিছুদিন আগেও হার্টের সমস্যায় বাইপাস সার্জারির কথা বিবেচনা করা হত। কিন্তু রোগীর বয়স ও অন্যান্য শারীরিক অবস্থার কথা বিবেচনা করে বাইপাস সার্জারি করা বেশি ঝুঁকিপূর্ণ। অত্যন্ত উন্নত প্রযুক্তির মেশিন রোটাব্লেডারের সাহায্যে ডায়মন্ড বা হিরে দিয়ে ধমনীতে জমে থাকা পাথর গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়। এরই ডাক্তারি নাম অ্যাথেরোক্টমি। করোনারি আর্টারির এই ধরনের কমপ্লেক্স লিশন রোটাব্লেডারের সাহায্যে সরিয়ে দিয়ে বেলুন অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি করা হয়। আর একেই বলে কমপ্লেক্স অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি। ধমনীর পাথর গুঁড়িয়ে দেবার জন্য রোগীকে অজ্ঞান করার প্রয়োজন হয় না। বেডের পাশে রাখা মনিটরে রোগী নিজেই এই পদ্ধতিটি দেখতে পান।

অসুখ প্রতিরোধে

সিগারেট, বিড়ির নেশা থাকলে তা অবিলম্বভাবে ছাড়তে হবে। হাঁটা ও এক্সারসাইজ আর কাল নয়, শুরু করতে হবে আজই, এখন থেকেই। এছাড়া স্ট্রেস কমাতে নিয়মিত কয়েকটি ব্রিদিং এক্সারসাইজ ও প্রাণায়াম করা জরুরি। খাওয়াদাওয়ার ব্যাপারটাও মাথায় রাখতে হবে। ভাজা খাবার এড়িয়ে চলুন। দিনে অন্তত চার-পাঁচটি সবজি ও দুটি গোটা ফল খান। বেশি বয়সে হার্টের ধমনীতে পাথর জমা আটকাতে এখন থেকেই সচেতন হোন।

যোগাযোগ ০৩৩৩৯৮৯৮৯৬৯