হায়দরাবাদ,২৯ অক্টোবরঃ ধর্ষণ করে খুন করা হল হায়দরাবাদের এক যুবতী পশু চিকিৎসককে। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে গোটা অন্ধ্রপ্রদেশ দেশজুড়ে। গত বুধবার থেকে নিখোঁজ ছিল এই চিকিৎসক। বৃহস্পতিবার শাহাদনগরের কাছে একটি আন্ডারপাস থেকে তাঁর দগ্ধ দেহ উদ্ধার করে পুলিশ। প্রাথামিক তদন্তের পর পুলিশের অনুমান প্রথমে ওই যুবতীকে ধর্ষণ করা হয়। এরপর তাঁকে জ্বালিয়ে দেওয়া হয়। এই ঘটনায় একাধিক ব্যক্তি জড়িত রয়েছে বলে সন্দেহ পুলিশের। কাছেই একটি টোলপ্লাজার সিসি টিভি ফুটেজ পরীক্ষা করে সন্দেহভাজক ৪জনকে ইতিমধ্যে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
পুলিশ জানিয়েছে যুবতীর ফোন থেকে শেষ কলটি গিয়েছিল ছোট বোনের কাছে। টোল প্লাজা থেকে ফেরার সময় ফোন করেছিলেন তিনি। তাঁর বোন পুলিশকে জানিয়েছেন, সেই কথোপকথনে তিনি বোনকে বলেছিলেন, ‘‌কিছু অপরিচিত লোক আমার পিছু নিয়েছে। আমার খুব অস্বস্তি হচ্ছে। আমার সঙ্গে কিছুক্ষণ কথা বল। আমার ভয় করছে।’‌
জানা গিয়েছে, টোলপ্লাজার কাছে ওই তরুণীর স্কুটারের টায়ারটির সমস্যা হয়। তখন ওই পিছু নেওয়া ব্যক্তিরাই সাহায্য করবে বলে এগিয়ে আসে। বেশ কিছুক্ষণ পর যখন তাঁর বোন রাত সাড়ে ১০টা নাগাদ ফোন করে চিকিৎসকের ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। এরপরেই থানায় অভিযোগ দায়ের করে পরিবার।