মুম্বই, ৫ জানুয়ারিঃ মাঝ আকাশে মরণাপন্ন সহযাত্রীর প্রাণ বাঁচালেন এক জেনারেল ফিজিশিয়ান। উড়ন্ত বিমানে হার্ট অ্যাটাক হয়েছিল ওই মহিলা যাত্রীর। এরপর জেড্ডা থেকে মুম্বইগামী বিমানটিকে আপৎকালীন পরিস্থিতিতে জেড্ডা ফিরিয়ে নিয়ে যেতে হয়নি।
মেঙ্গালুরুর বাসিন্দা কাসিম কর্মসূত্রে সৌদি আরবের মক্কায় থাকেন। সেখানে এশিয়ান পলিক্লিনিকের স্বাস্থ্যবিমা বিভাগের প্রধান তিনি। দিন কয়েক আগে ছুটিতে বাড়ি ফিরছিলেন তিনি। রাত একটায় জেড্ডা থেকে প্লেন ছাড়ার পর প্রায় সব যাত্রীই ঘুমিয়ে পড়েন। আচমকা এক মহিলার আর্তনাদে ঘুম ভাঙে সবার। বুক চেপে ধরে প্রচণ্ড কষ্টে ছটফট করছিলেন বছর ৫৫-র ওই মহিলা যাত্রী। এয়ারহোস্টেসরা বিমানে কোনও ডাক্তার আছেন কিনা, তা জানতে চান।
মুহূর্তে নিজের কর্তব্য স্থির করে ফেলেন কাসিম। মহিলাকে শুইয়ে দিয়ে তাঁর নাড়ি পরীক্ষা করেন। বুঝতে পারেন যে হার্ট অ্যাটাক হয়েছে তাঁর। ততক্ষণে শ্বাস-প্রশ্বাস বন্ধ হয়ে গিয়েছে ওই যাত্রীর। দুই হাত দিয়ে তাঁর বুকের ওপর চাপ দিতে থাকেন কাসিম। কিছুক্ষণ পর ফের শ্বাস নিতে শুরু করেন আক্রান্ত মহিলা। বিমান থাকা ফার্স্ট এইড বক্স থেকে নিয়ে বেশ কয়েকটি ইঞ্জেকশনও তাঁকে দেন। জ্ঞান ফিরে আসে তাঁর। এরপর বাকি ঘণ্টা দুয়েকের বিমান সফর সচেতন অবস্থায় তাঁকে পাশে বসিয়ে নিয়ে যান কাসিম। মুম্বইতে নেমে অ্যাম্বুলেন্সে চাপিয়ে তবে বিদায় নেন তিনি।