চিকিৎসক-স্বাস্থ্যকর্মী সহ ৩০ কোটি মানুষ প্রথমে ভ্যাকসিন পাবেন

2320

অনলাইন ডেস্ক: ফেব্রুয়ারিতেই আসতে পারে প্রথম দেশীয় করোনা টিকা ‘কোভ্যাক্সিন’। দিনদুয়েক আগেই এব্যাপারে আভাস দিয়েছিলেন কেন্দ্রীয় সরকারের কোভিড টাস্কফোর্সের সদস্য তথা আইসিএমআরের প্রবীণ বিজ্ঞানী রজনী কান্ত।

তিনি বলেছিলেন, এই মাসে কোভ্যাকসিন টিকার তৃতীয় তথা চূড়ান্ত পর্যায়ে পরীক্ষা শুরু হচ্ছে। প্রথম এবং দ্বিতীয় পর্যায়ে পরীক্ষা সফল হয়েছে। এখন পর্যন্ত টিকাটি সম্পূর্ণ নিরাপদ ও যথেষ্ট কার্যকর বলে প্রমাণিত হয়েছে। এটা থেকে ধারণা করা যায় যে, নির্ধারিত সময়ের আগে, আগামী বছরের গোড়ায় ফেব্রুযারি-মার্চের মধ্যে ওই টিকা বাজারে চলে আসবে। যদিও ভারত বায়োটেকের তরফে এই নিয়ে এখনও কিছু জানানো হয়নি। আইসিএমআরের গবেষণা পরিচালনা, নীতি, পরিকল্পনা, সহায়ক সেলের প্রধান হলেন রজনী কান্ত।

- Advertisement -

আর এবার টিকা সরবরাহ ব্যবস্থা নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার কাজ শুরু করল কেন্দ্রীয় সরকার। প্রথম দফায় মোট ৩০ কোটি মানুষকে বিনামূল্যে এই ভ্যাকসিন দেওয়া হবে। এই বিষয়ে খসড়া তৈরির প্রস্তুতিও চলছে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন আগেই জানিয়েছিলেন রাজ্য প্রশাসনের কাছে এই সংক্রান্ত তালিকা চাওয়া হবে। সূত্রের খবর, ভারতে তৈরি প্রথম কোভিড টিকা বিনামূল্যে সরবরাহ করার জন্য চারটি গোষ্ঠী প্রস্তুত করা হয়েছে।

  • পেশাদার স্বাস্থ্যকর্মী: এমবিবিএস পড়ুয়ারা, চিকিৎসক, নার্স ও আশা কর্মী সহ এক কোটি পেশাদার স্বাস্থ্যকর্মীর ওপর টিকা প্রয়োগ করা হবে।
  • ফ্রন্টলাইন ওয়ার্কার: পুরকর্মী, পুলিশ কর্মী এবং সশস্ত্র বাহিনীর কর্মীরা এই তালিকায় রয়েছেন। প্রায় দুই কোটি প্রথম সারির কোভিড কর্মীকে এই টিকা দেওয়া হবে।
  • পঞ্চাশোর্ধ্ব ব্যক্তি: ৫০ বছরের বেশি বয়সী ২৬ কোটি নাগরিককে বিনামূল্যে কোভিড টিকা দেওয়ার পরিকল্পনা করা হয়েছে।
  • এছাড়া জটিল রোগে আক্রান্ত ৫০ বছরের কম বেশি বয়সী আরও এক কোটি মানুষকে এই ভ্যাকসিন দেওয়া হবে।