ময়নাগুড়ি, ৭ মেঃ ময়নাগুড়িতে গত দুদিনে কুকুরের কামড়ে জখম হয়েছেন কমপক্ষে ১৮ জন। তাঁদের মধ্যে তহিরুদ্দিন মহম্মদ (৫২) নামে এক ব্যক্তিকে জলপাইগুড়ি সদর হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। তাঁর বাড়ি আলিপুরদুয়ার জেলার রাঙালিবাজনার শিশু বাড়িতে। তিনি আত্মীয়কে দেখতে ময়নাগুড়ি গ্রামীণ হাসপাতালে এসেছিলেন। সেই সময় সেখানে তাঁকে কুকুরে কামড় দেয়। এছাড়া বাকি ১৭ জন ময়নাগুড়ির আমগুড়ি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার চারেরবাড়ি ও ধওলাগুড়ির বাসিন্দা। মঙ্গলবার দুপুরে ধওলাগুড়ির বাসিন্দা চন্দ্রমোহন সরকার (৬০) এবং চারেরবাড়ির বাসিন্দা দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্রী সবিতা সরকারকে কুকুরে কামড় দেয়। সবিতার বা পায়ে চারটি সেলাই পড়েছে।

ময়নাগুড়ি ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিক ডঃ লাকি দেওয়ান বলেন, ‘সকলকেই কুকুরের কামড়ের ইঞ্জেকশন দেওয়া হয়েছে। একজনকে জলপাইগুড়ি সদর হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। এমনিতে আমাদের কাছে কুকুরের কামড়ের ইঞ্জেকশন মজুত আছে। কিন্তু এত সংখ্যক রোগী আসতে থাকলে সমস্যা হবে। তারজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে।’