কলকাতা, ২০ জুন : ধর্মের রং দেখে নয়, অপরাধ ও অপরাধীর সাজা হোক আইনি পথে। দোষীদের কঠোর শাস্তিই কাম্য। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে খোলা চিঠি দিয়ে এমনটাই জানালেন কলকাতার মুসলিম নাগরিকদের একাংশ। প্রথমে এনআরএসে জুনিয়র ডাক্তারকে হেনস্তা এবং তারপর প্রাক্তন মিস ইন্ডিয়া উষসী সেনগুপ্তকে হেনস্তার ঘটনায় যে দুষ্কৃতীদের নাম জড়িয়েছে, তারা বেশিরভাগই সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের৷ এই ঘটনায় তাঁরা লজ্জিত বলে জানিয়েছেন ওই বিশিষ্ট নাগরিকরা। চিঠিতে মুখ্যমন্ত্রীকে বলা হয়েছে, ‘সম্প্রতি এনআরএসে ডাক্তারদের উপর হামলা ও অভিনেত্রী উষসী সেনগুপ্তর উপর আক্রমণ, দুটি ঘটনার ক্ষেত্রেই আমরা গভীর উদ্বেগের সঙ্গে দেখেছি, আক্রমণকারীরা আমাদেরই সম্প্রদায়ের। এতে আমরা দুঃখিত ও লজ্জিত। অপরাধীদের আইনি সাজা দিন। সংবিধানে অপরাধের কোনও ধর্ম হয় না। কাজেই শুধুমাত্র এই দুটি ঘটনা নয়, যে কোনও ঘটনাতেই যদি মুসলিমরা জড়িত থাকেন তাঁদের উপযুক্ত সাজা প্রাপ্য।’ চিঠিতে আরও লেখা হয়েছে, ‘ইদানীংকালে মানুষ যা ভাবছে তেমনটা যেন কখনওই না হয়, অর্থাৎ মুসলিম বলে কেউ ছাড় পেয়ে না যান। তাতে সকলের কাছেই এই বার্তা যাবে একটি গোষ্ঠীকে আড়াল করার চেষ্টা হচ্ছে না।’ মুসলিম সম্প্রদায়ের দুষ্কৃতীদের সরকার আড়াল করছে, এমন একটা ধারণা অধিকাংশ মানুষের মনে গড়ে উঠছে বলেও এই নাগরিকরা তাঁদের চিঠিতে উল্লেখ করেছেন। চিঠিটিতে ৫০ জন বিশিষ্ট নাগরিকের নাম রয়েছে। তাঁদের সকলের তরফেই জানানো হয়েছে, আইনি পদক্ষেপ সকলের জন্যই কড়া হলে মুসলিম যুব সম্প্রদায়ের কাছেও একটা বার্তা যাবে। লিঙ্গসংবেদনশীলতা ও আইনি সচেতনতা বাড়ানোর আর্জিও চিঠিতে জানানো হয়েছে মুখ্যমন্ত্রীকে।