কামাখ্যাগুড়িতে পাইপ ফুটো করে পানীয় জলের অপচয়

কামাখ্যাগুড়ি : কামাখ্যাগুড়ি-২ গ্রাম পঞ্চায়েতের শান্তিনগর এলাকায় একশ্রেণির বাসিন্দা দীর্ঘদিন ধরেই পিএইচইর পাইপ ফুটো করে জলের অপচয় করছেন বলে অভিযোগ। কামাখ্যাগুড়ি শান্তিনগর থেকে দক্ষিণ কামাখ্যাগুড়ির বাংলা চৌপথি পর্যন্ত রাস্তার পাশে মাটির নীচ দিয়ে পিএইচইর পাইপ বসানো রয়েছে। প্রকল্পটির নির্মাণের পর নির্দিষ্ট দূরত্বে পিএইচইর জলের কল বসানো হয়। কিন্তু কামাখ্যাগুড়ি সদর এলাকার বেশ কিছু পাড়ায় স্থানীয় বাসিন্দাদের একাংশ অবৈধভাবে পানীয় জলের পাইপ ফুটো করে নিজেদের বাড়ির কাছে জল সরবরাহের ব্যবস্থা করে নিয়েছেন বলে অভিযোগ। যার ফলে প্রান্তিক এলাকার বেশ কিছু কলে ঠিকমতো জল না পৌঁছোনোর অভিযোগও উঠেছে।

ওই রাস্তার ধারেই তিন-চার জায়গায় পিএইচইর পাইপ ফুটো করে জলের সংযোগ বানানো হয়েছে। শান্তিনগরের বাসিন্দা রোহিত কর বলেন, এই রাস্তার পাশে অনেক দূরে দূরে পানীয় জলের কল বসানো রয়েছে। যাতে দূর থেকে জল বয়ে নিয়ে আসতে না হয় তাই পানীয় জলের পাইপ ফুটো করে জলের ব্যবস্থা করেছে একাংশ বাসিন্দা। অপর বাসিন্দা তন্ময় দাস বলেন, এইভাবে পাইপ ফুটো করায় নোংরা-আবর্জনা পাইপের জলে মিশে দূষণ ছড়ানোর আশঙ্কা রয়েছে। এই অবৈধ সংযোগগুলি বন্ধ করা প্রয়োজন। তার পরিবর্তে ওই নির্দিষ্ট এলাকায় অতিরিক্ত জলের কল বসানো হলে বাসিন্দারা উপকৃত হবেন। স্থানীয় বাসিন্দাদের একাংশ জানান, ওই অবৈধ সংযোগগুলি থেকে সারাদিন ধরে জল অনবরত বেরোতেই থাকে। এমনকি পাশের চাষের জমি জলে ভরে যায় এবং রাস্তার ওপরে অনেক সময় জল জমে থাকে। এভাবে জলের অপচয় বন্ধে অবিলম্বে পদক্ষেপের দাবি তুলেছেন স্থানীয়দের একাংশ।

- Advertisement -

অন্যদিকে, মধ্য এবং দক্ষিণ কামাখ্যাগুড়ির মতো এলাকায় দীর্ঘদিনের পিএইচইর পানীয় জল পরিষেবার দাবিপূরণ না হওয়ায় ওই এলাকার বাসিন্দারা ক্ষুব্ধ। দক্ষিণ কামাখ্যাগুড়ি এলাকার বাসিন্দা দীপা মল্লিক, রতন আচার্য জানান, কামাখ্যাগুড়ি সদরে অনবরত জলের অপচয় হচ্ছে। কিন্তু তাঁদের এলাকায় পানীয় জলের কোনও ব্যবস্থাও নেই। বাধ্য হয়ে নিকটবর্তী কোচবিহার জেলার সীমানাবর্তী এলাকা থেকে জল নিয়ে আসতে হয় বলে তাঁদের অনেকেই জানান।

এই বিষয়ে সিপিএমের কুমারগ্রাম পশ্চিম এরিয়া কমিটির সম্পাদক বীরেন বর্মন বলেন, বাম আমলে কামাখ্যাগুড়ির জলপ্রকল্পের কাজ সম্পন্ন হয়। প্রান্তিক এলাকাগুলিতে পানীয় জলের ব্যবস্থা করতে ব্যর্থ শাসকদল। বিজেপির আলিপুরদুয়ার জেলার সহসভাপতি বিপ্লব সরকার বলেন, কামাখ্যাগুড়ি শান্তিনগরে ওই এলাকার পঞ্চায়েত সদস্যের বাড়ির সামনে অবৈধভাবে পাইপ ফুটো করা হয়েছে। প্রশাসন হাত গুটিয়ে বসে রয়েছে। পাশাপাশি মধ্য এবং দক্ষিণ কামাখ্যাগুড়ি এলাকায় জলের পরিষেবা প্রদানেও ব্যর্থ রাজ্যের শাসকদল।

কামাখ্যাগুড়ি-২ গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান নিয়তি বর্মন (রায়) বলেন, কামাখ্যাগুড়িতে জলপ্রকল্পের সবকিছু পিএইচই দেখভাল করে। পাইপ ফুটো করে জলের অপচয়ে বিষয়টি সংশ্লিষ্ট দপ্তরকে লিখিতভাবে জানানো হবে। পিএইচইর আলিপুরদুয়ারের এগজিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়ার সুব্রত ধর বলেন, জলপ্রকল্পের খুঁটিনাটি সবসময় দেখভাল করার মতো কর্মীর অভাব রয়েছে। গ্রাম পঞ্চায়েত কর্তৃপক্ষ লিখিতভাবে জানালে সমস্যা সমাধানে পদক্ষেপ করা হবে।