একাকিত্ব কাটাতে দুলালের ভরসা গ্রামোফোন-রেডিও

230

রায়গঞ্জ: উত্তর দিনাজপুর জেলা রেজিস্ট্রি দপ্তরের অবসরপ্রাপ্ত কর্মী দুলালচন্দ্র দত্ত। বয়স ৭৭। তিন মেয়ের বিয়ে হয়ে যাওয়ার পর ভালোই ছিলেন স্বামী-স্ত্রী। কিন্তু সাড়ে চার বছর আগে স্ত্রী রত্না দত্তের আচমকা চলে যাওয়া তাঁর জীবনে এলোমেলো করে দিয়েছে। এখন তাঁর ভরসা পুরোনো গ্রামোফোন আর রেডিও। গ্রামোফোন আর রেডিও শুনে একাকী জীবন কাটে দুলালবাবুর

রায়গঞ্জের দেবীনগরে নিজের বাড়িতে একাই থাকেন দুলালবাবু। স্ত্রী প্রয়াত হওয়ার পর একাকীত্ব কাটাতে গানই একমাত্র সঙ্গী তাঁর। রান্না সহ বাড়ির যাবতীয় কাজের ফাঁকে ফাঁকে গান শোনেন, রেডিওতে খবর শোনেন। আধুনিক বাংলা গান, কমিকস, লোকগীতি, শ্যামাসঙ্গীত রেকর্ড প্লেয়ার রয়েছে দুলালবাবুর।

- Advertisement -

তিনি প্রথমজীবনে চা বাগানে কর্মরত ছিলেন। পরে রেজিস্ট্রি দপ্তরে করণিক পদে যোগ দেন। দুলালবাবু জানান, তিনি চা বাগানে কাজ করার সময় ম্যানেজারের ঘরে গিয়ে গ্রামোফোন রেকর্ডে গান শুনতেন। তখন থেকেই গ্রামোফোনের প্রতি আকৃষ্ট হন। এরপর তিনি একটি পুরোনো গ্রামোফোন কিনেন। সেটি এখনও যত্ন করে রেখে দিয়েছেন। দুলালবাবু বলেন, ‘’উচ্চাঙ্গসঙ্গীত খুবই ভালো লাগে। ভবানীচরণ দাস, রাম প্রসাদের বহু রেকর্ড প্লেয়ার রয়েছে। পাশাপাশি রেডিও শুনতেও  ভালোবাসি। প্রতিদিন সকাল ৬টা থেকে ১১টা পর্যন্ত রেডিও শুনি আর রান্না করি। স্ত্রী বিয়োগের পর খুবই একা। তাই সারাদিন গানের মধ্যেই নিজেকে ডুবিয়ে রাখি নিজেকে।‘ দুলালবাবুর গ্রামোফোন দেখতে এবং গান শুনতে অনেকেই তাঁর বাড়িতে ভিড় জমান।