দর্শকশূন্য পুজো মণ্ডপ, চতুর্থীতে হাইকোর্ট যাচ্ছে ফোরাম ফর দুর্গোৎসব

309

কলকাতা: দর্শকশূন্য মণ্ডপ রায় পুনর্বিবেচনার আর্জি নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হবে ফোরাম ফর দুর্গোৎসব কমিটি। আজ মঙ্গলবার দুপুরে ওই মামলার শুনানি হতে পারে। ফোরাম ফর দুর্গোৎসব কমিটি প্রয়োজনে সুপ্রিমকোর্টেও যাওয়ার কথা ভাবছে।

করোনা সংক্রমণ-বৃদ্ধির আশঙ্কায় সোমবার ঐতিহাসিক রায় দেয় কলকাতা হাইকোর্ট। বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চ জানায়, দর্শকশূন্য থাকবে রাজ্যের সব পুজো মণ্ডপ। প্রতিটি পুজো মণ্ডপ নো এন্ট্রি জোন হিসেবে গণ্য হবে। পুজোর এলাকা ব্যারিকেড দিয়ে ঘিরে নো-এন্ট্রি বোর্ড লাগাতে হবে। রায়ে আদালত আরও জানায়, ছোট মণ্ডপের ক্ষেত্রে ৫ মিটার এবং বড় মন্ডপের ক্ষেত্রে ১০ মিটার দূরত্ব পর্যন্ত ব্যারিকেড দিতে হবে। পুজোর প্রয়োজনে যাদের ঢুকতে হবে, মণ্ডপের বাইরে তাঁদের নামের তালিকা টাঙিয়ে রাখতে হবে। তবে ১৫ থেকে ২৫ জনের বেশি মণ্ডপে ঢুকতে পারবে না। আদালতের নির্দেশ মানা হচ্ছে কি না, তা-ও দেখতে হবে উদ্যোক্তা এবং পুলিশকেই। এই নির্দেশের প্রেক্ষিতে রায় পুনর্বিবেচনার আর্জি নিয়ে আজ ফের বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের বেঞ্চে আবেদন জানিয়েছে ফোরাম ফর দুর্গোৎসব। কারণ, হাইকোর্টের রায়ে রাজ্যের বেশির ভাগ পুজো সংগঠনগুলি আশাহত। শেষ মুহূর্তে এই রায়ের কারণে নানা সমস্যার কথাও তুলে ধরেন উদ্যোক্তারা।

- Advertisement -

যদিও কলকাতা হাইকোর্টের এই রায়কে স্বাগত জানিয়েছে চিকিৎসক মহল।তাঁদের আশঙ্কা ভিড় নিয়ন্ত্রণ না করা গেলে পুজোর পর করোনার সংক্রমণ বাড়বে। অন্যদিকে আদালতের রায় কতটা মানা হল, তা জানিয়ে লক্ষ্মীপুজোর পর আদালতে হলফনামা পেশ করতে হবে রাজ্যকে। পুনর্বিবেচনার আর্জিতে হাইকোর্ট সাড়া দেয় কি না, এখন সে দিকেই তাকিয়ে পুজো উদ্যোক্তা, দর্শক থেকে চিকিৎসক মহল।