নির্মীয়মাণ জাতীয সড়কে ধুলোয় পড়ুযারা অতিষ্ঠ, বাসিন্দারা ক্ষুব্ধ

297

ফাঁসিদেওয়া : নির্মীয়মাণ ৩১ডি জাতীয সড়কের ধুলোর জেরে ফাঁসিদেওয়া টিচার্স ট্রেনিং ইনস্টিটিউটের পড়ুযাদের প্রাণ ওষ্ঠাগত। ফাঁসিদেওয়া ব্লকের উপর জিয়ে এই জাতীয সড়ক গিয়েছে। রাস্তার দুধারে ঘোষপুকুর থেকে সলসলাবাড়ি পর‌্যন্ত ইস্টওযে্ট করিডর তৈরির কাজ শুরু হয়েছে। ঠিকমতো রাস্তার কাজ না করার জেরে দিনরাত ধুলো উড়ছে বলে অভিযোগ।

ধুলোর জেরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটির পাশাপাশি মহিপাল, কান্তিভিটা সংলগ্ন এলাকার বাসিন্দাদের সঙ্গে এই রাস্তায় চলাচলকারী হাজার হাজার মানুষ সমস্যায পড়ছেন। শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যার পাশাপাশি বাসিন্দারা নানা রোগের শিকার হচ্ছেন। সমস্যা মেটাতে বাসিন্দারা এখনও পর্যন্ত তিনবার পথ অবরোধ করেছেন। কিন্তু প্রতিশ্রুতি মেলা ছাড়া কোনওবার সমস্যার সুরাহা হযনি। দ্রুত সমস্যা না মেটানো হলে বাসিন্দারা বৃহত্তর আন্দোলনের হুমকি দিয়েছেন। রাস্তা তৈরির দায়িত্বে থাকা ঠিকাদার সংস্থার প্রোজেক্ট ম্যানেজার নারায়ণ গুপ্তা বলেন, ধুলো ওড়া আটকাতে আমরা নিযমিতভাবে রাস্তায জল দিই। তবে রাস্তা খারাপ হওয়ার আশঙ্কায খুব বেশি পরিমাণে জল দেওয়া যাচ্ছে না। আশা করছি, রাস্তাটি পুরোপুরিভাবে চালু হয়ে গেলে এই সমস্যা আর থাকবে না। সমস্যা মেটাতে আপাতত প্রযোজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি আশ্বাস দেন। বিডিও সঞ্জু গুহমজুমদার বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন।

- Advertisement -

ঘোষপুকুর মোড় থেকে সলসলাবাড়ি পর্যন্ত ইস্ট-ওয়েস্ট করিডরের কাজ চলছে। কিন্তু কাজটি ঠিকমতো করা হচ্ছে না বলে অভিযোগ রয়েছে। মাটি কেটে রাস্তার বিভিন্ন জায়গায় রাখা হয়েছে। ধুলো ওড়া আটকাতে রাস্তায় ঠিকমতো জল দেওয়া হচ্ছে না বলে বাসিন্দারা অভিযোগ জানিয়েছেন। ডাম্পারে মাটি ভরে নিয়ে যাওয়ার সময় তা রাস্তায় পড়ে থাকছে। সেই মাটি শুকিয়ে ধুলো হয়ে সবসময় উড়ছে। এর জেরে বাসিন্দারা শ্বাসকষ্টজনিত রোগের শিকার হচ্ছেন। পাশাপাশি, ধুলোর জেরে পাল্লা দিযে দুর্ঘটনার আশঙ্কা বাড়ছে। এই সমস্যা মেটানোর দাবিতে মহিপাল কান্তিভিটা এলাকার বাসিন্দারা তিনবার জাতীয সড়ক অবরোধ করেছিলেন। ঠিকাদার সংস্থা প্রতিবার সমস্যা মেটানোর আশ্বাস দিলেও কোনওবারই সমস্যা মেটেনি। এনিযে বাসিন্দাদের মধ্যে ক্ষোভ বাড়ছে। স্থানীয লিচুবাগান সংলগ্ন এলাকায় থাকা ফাঁসিদেওয়া প্রাইমারি টিচার্স ট্রেনিং ইনস্টিটিউটের পড়ুযারাও কলেজে গিযে ধুলোর জেরে নাজেহাল হচ্ছেন। ওই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ক্লাসরুম থেকে শুরু করে স্থানীয বাড়ির রান্নাঘর ধুলোয ঢেকে থাকছে। সমস্যা মেটানোর দাবিতে সবাই সরব হয়েছেন। একে তো কলেজের ভিতর সবসময ধুলোয় ঢাকা থাকছে, তার উপর রাস্তায় গাড়ির জন্য দাঁড়িয়ে থাকার সময় দমবন্ধ হয়ে আসছে বলে মৌ ঘোষের মতো ফাঁসিদেওয়া প্রাইমারি টিচার্স ট্রেনিং ইনস্টিটিউটের একাধিক পড়ুযা জানিয়েছেন।

সমস্যার বিষয়ে অবগত হওয়া সত্ত্বেও স্থানীয় প্রশাসন উদাসীন বলে স্থানীয় বাসিন্দা শংকরকুমার ঘোষ, অবিনাশ প্রধান, বসন্ত পাল প্রমুখ জানিয়েছেন। তাঁরা জানান, বাড়িতে খাবারে সবসময় ধুলো পড়ায জীবন ওষ্ঠাগত হযে পড়ছে। তড়িঘড়ি সমস্যা না মেটালে তাঁরা বৃহত্তর আন্দোলনের হুমকি দিয়েছেন। ফাঁসিদেওয়া হাসপাতালের এক চিকিৎসক জানান, ধুলোর জেরে শিশু ও বযস্করা সবচেযে বেশি সমস্যায় পড়ছে। এনিযে পরবর্তীতে গুরুতর সমস্যা হতে পারে। আপাতত সমস্যা এড়াতে তিনি মাস্ক ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছেন।

ছবি- ধুলোয় ঢাকা জাতীয় সড়ক

তথ্য ও ছবি- সৌরভ রায়