সিএএ, এনআরসি নিয়ে মোদি, মমতার সমালোচনায় মহম্মদ সেলিম

249

রায়গঞ্জ, ২৭ জানুয়ারিঃ সিএএ, এনআরসি নিয়ে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারকে দুষলেন রায়গঞ্জের প্রাক্তন সাংসদ তথা সিপিআই(এম)-এর পলিটব্যুরোর সদস্য মহম্মদ সেলিম। সোমবার রায়গঞ্জের শিলিগুড়ি মোড় থেকে ডিওয়াইএফআইয়ের পদযাত্রা শুরু হয়। শেষ হয় রায়গঞ্জ শহরের স্টেশন রোডে। ডিওয়াইএফআইয়ের তরফে সিএএ ও এনআরসি-র বিরুদ্ধে রায়গঞ্জ শহরের রেলস্টেশন সংলগ্ন মাঠে জনসভার আয়োজন করা হয়েছিল। সেখানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সমালোচনা করে মহম্মদ সেলিম বলেন, ‘দু’জনেই এনআরসি, এনআরসি করে যাচ্ছেন। মানুষের মূল সমস্যা নিয়ে মোদি এবং দিদি কাউকেই জবাব দিতে হচ্ছে না। এই বিষয়টা মোদি এবং দিদির টিকে থাকার সহজ হাতিয়ার হয়ে গিয়েছে। পরিকল্পিত অসুবিধা তৈরি করা হচ্ছে। যাতে সবাই সব অভাব-অভিযোগ ভুলে গিয়ে সিএএ ও এনআরসি নিয়ে পড়ে থাকে।’ যুব সংগঠনের কর্মসূচিতে যোগ দিতে এসে কার্যত বিজেপির বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন রায়গঞ্জের প্রাক্তন সাংসদ। এদিন তিনি বলেন, ‘যুবসমাজ কাজ পাচ্ছে না। তাদের দিশাহীন অবস্থা। অথচ সেদিকে কেন্দ্রীয় সরকারের কোনো নজর নেই। কাজতো দুরস্ত এখন তাঁরা কে হিন্দু, কে মুসলিম, কে খ্রীস্টান এই ভেদাভেদের রাজনীতি নিয়েই মানুষকে ব্যস্ত করে রাখছেন। উন্নয়ন মানুষের কাছে এখন অধরা। এর বিরুদ্ধেই ছাত্র-যুব সমাজ এখন গর্জে উঠছে। রেল, বিমা বেসরকারিকরণ করার চেষ্টা করছে কেন্দ্রীয় সরকার। জিনিসপত্রের মূল্যবৃদ্ধি লাফিয়ে বাড়ছে, মানুষের নাভিশ্বাস ছুটে যাচ্ছে। এইরকম একটা পরিস্থিতিতে দেশকে বিপদের দিকে ঠেলে দিয়েছে কেন্দ্রের বিজেপি সরকার।’ বাংলায় সার্কাস চলছে বলে মন্তব্য করেন তিনি। ফ্যাসিবাদ রুখতে এদিন ডিওয়াইএফআইয়ের সমাবেশে ঐক্যের আহ্বান জানানো হয়। এদিনে সমাবেশে মহম্মদ সেলিম ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, ডিওয়াইএফআইয়ের সর্বভারতীয় সম্পাদক অভয় মুখোপাধ্যায়, সিপিএমের জেলা সম্পাদক অপূর্ব পাল প্রমুখ।