সিপিএমের কাছে যুবদের প্রার্থী করার প্রস্তাব ডিওয়াইএফআইয়ের

200

শিলিগুড়ি : রাজ্যের বেশ কয়েকটি বিধানসভা কেন্দ্রের পাশাপাশি শিলিগুড়ি ও ডাবগ্রাম- ফুলবাড়ি কেন্দ্রে যুবনেতাদের প্রার্থী করার ব্যাপারে প্রস্তাব যাচ্ছে সিপিএমের কাছে। দলীয় সূত্রে খবর, ইতিমধ্যেই দলের যুব সংগঠন ডিওয়াইএফআইয়ের তরফে সিপিএমকে বলা হয়েছে, অন্যবারের চাইতে এবার যাতে যুবনেতাদের বেশি জায়গায় প্রার্থী করা যায়, সেই ব্যাপারে দল যেন চিন্তাভাবনা করে। উত্তরবঙ্গের বেশ কয়েকটি কেন্দ্রের পাশাপাশি শিলিগুড়ি ও ডাবগ্রাম-ফুলবাড়ি বিধানসভা কেন্দ্রেও যাতে সিপিএম যুবদের প্রার্থী করে সেই ব্যাপারে প্রস্তাব যাচ্ছে বলে খবর। পুরো বিষয়টি নিয়ে ১৬ তারিখ শিলিগুড়ির অনিল বিশ্বাস ভবনে দার্জিলিং জেলা সিপিএমের সঙ্গে বৈঠকে ডাকা হয়েছে দলের যুব ও ছাত্র সংগঠনকে। ওই বৈঠকে অশোক ভট্টাচার্য, জীবেশ সরকারের পাশাপাশি উপস্থিত থাকার সম্ভাবনা রয়েছে মহম্মদ সেলিমের। দলের রাজ্য সম্পাদক ডাঃ সূর্যকান্ত মিশ্রও ওই বৈঠকে উপস্থিত থাকতে পারেন।

সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে গতবারের মতো এপ্রিলের মাঝামাঝি সময় রাজ্যে বিধানসভা ভোট হবে, এটা ধরে নিয়ে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ইতিমধ্যেই প্রচার শুরু করেছে। তবে এবার উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন বিধানসভা কেন্দ্রে যুবনেতাদের প্রার্থী করার পক্ষেই মত দিয়েছেন অনেকে। বিশেষ করে দলের যুব নেতৃত্বও চাইছেন তাঁদের দায়িত্ব দিলে ফল অন্যরকম হলেও হতে পারে। দার্জিলিং জেলায় শিলিগুড়ি বিধানসভা কেন্দ্র ও শিলিগুড়ি সংলগ্ন জলপাইগুড়ি জেলার অন্তর্গত ডাবগ্রাম-ফুলবাড়ি বিধানসভা কেন্দ্রেও অনেকে চাইছেন যুব নেতৃত্বকে দায়িত্ব দেওয়া হোক। সেক্ষেত্রে শিলিগুড়ি কেন্দ্রে দলের যুবনেতা শংকর ঘোষ ও ডাবগ্রাম-ফুলবাড়ি বিধানসভা কেন্দ্রে যুবনেতা তাপস চট্টোপাধ্যায়কে চাইছেন একটা পক্ষ। এই দুই নেতাই শিলিগুড়ির দুটি ওয়ার্ডের বর্তমান ওয়ার্ড কোঅর্ডিনেটর। শংকরবাবু আবার শিলিগুড়ি পুরনিগমের বর্তমান প্রশাসকমণ্ডলীর অন্যতম সদস্য। যুবনেতা সৌরাশিস রায়ের কথাও বলছেন অনেকে। তবে পুরো বিষয়টি নির্ভর করবে সিপিএমের রাজ্য কমিটির উপর। দল যদি যুবনেতাদের এ বছর বেশি কেন্দ্রে প্রার্থী করতে চায় তবে আগের বারের প্রার্থী বদল হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। শিলিগুড়িতে যদিও অশোক ভট্টাচার্যকে সামনে রেখে ইতিমধ্যেই প্রচার শুরু করে দিয়েছে সিপিএম। অশোকবাবু বিভিন্ন ওয়ার্ডে ঘোরাও শুরু করে দিয়েছেন। অন্যদিকে, দিলীপ সিং গত দুবার ডাবগ্রাম-ফুলবাড়ি বিধানসভা কেন্দ্রের প্রার্থী হিসেবে লড়াই করে পরাজিত হয়েছেন। তাই ওই কেন্দ্রে দলের যুবদের একটা অংশ চাইছেন এবার দিলীপ সিংকে প্রার্থী না করে তাপস চট্টোপাধ্যায়ে মতো যুবনেতাকে প্রার্থী করুক দল। যদিও পুরো বিষয়টি নিয়ে ডিওয়াইএফআইয়ের রাজ্য সম্পাদক সায়নদীপ মিত্র বলেন, একমাত্র বামেরাই প্রবীণদের পাশাপাশি নবীনদের ভোটে প্রার্থী করে। তাই অভিজ্ঞতার পাশাপাশি তারুণ্যের বিষয়টি এবারেও প্রার্থীতালিকা প্রকাশের সময় আমাদের দল নজর রাখবে।

- Advertisement -