১২ ঘণ্টার মধ্যে উত্তর-পূর্বের দুটি রাজ্যে ভূমিকম্প

350

অনলাইন ডেস্ক: দেশে ফের ভূমিকম্প। ১২ ঘণ্টার মধ্যে কেঁপে উঠল উত্তর-পূর্বের দুটি রাজ্য। বৃহস্পতিবার দুপুরে মিজোরামে ও বুধবার গভীর রাতে মেঘালয়ে কম্পন অনুভূত হয়েছে।

এদিন দুপুর ২টো ২৮ মিনিট নাগাদ মিজোরামে ভূমিকম্প হয়। রিখটর স্কেলে মাত্রা ছিল ৪.৩। মিজোরামের ছম্পাই থেকে ২৩ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে ভূমিকম্পের উৎসস্থল ছিল। কম্পনের কেন্দ্রস্থল ছিল ভূপৃষ্ঠ থেকে মাত্র ১০ কিলোমিটার গভীরে। এর আগে গতকাল রাত ৩টে ৩৮ নাগাদ মেঘালয়ে কম্পন অনুভূত হয়। চেরাপুঞ্জি থেকে ৩৬ কিলোমিটার উত্তর-পশ্চিমে ভূমিকম্পের উৎসস্থল ছিল। রিখটর স্কেলে মাত্রা ছিল ২.৫।

- Advertisement -

গতকাল দুপুরে উত্তর-পূর্বের আরেক রাজ্য অসমে মৃদু ভূমিকম্প হয়। তার আগে ভোর ৫টা ২০ মিনিট নাগাদ ভূমিকম্প অনুভূত হয় আন্দামান দ্বীপপুঞ্জে। রিখটার স্কেলে কম্পনের মাত্রা ছিল ৪.৪। আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জের দিগলিপুর এলাকা থেকে ৪২ কিমি দূরে ভূমিকম্পের উৎসস্থল। ভূপৃষ্ঠ থেকে ১০ কিলোমিটার গভীরে ভূমিকম্পের কেন্দ্রস্থল। যদিও ভূমিকম্পে ক্ষয়ক্ষতির কোনও খবর পাওয়া যায়নি।

এর আগে সোমবার রাত ১টা ৩৩ নাগাদ অরুণাচলপ্রদেশ অনুভূত হয়। তীব্রতা ছিল ৩.৪। গত কয়েক সপ্তাহ ধরে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ভূমিকম্প হচ্ছে। দিল্লি, গুজরাত, লাদাখ, কাশ্মীর, হরিয়ানা, আন্দামান, মিজোরাম, উত্তরাখন্ড, হিমাচলপ্রদেশ সহ দেশের নানা প্রান্তে ভূমিকম্প হয়েছে। কম্পনের মাত্রা কম থাকলেও একের পর এক কম্পন ভূবিজ্ঞানীদের কপালে চিন্তার ভাঁজ ফেলেছে।

তাঁদের মতে, একের পর এক স্বল্প মাত্রার কম্পন বড় ভূমিকম্পের ইঙ্গিত নিয়ে আসছে। আইআইটি ধানবাদের সিসমোলজি বিভাগের জিওফিজিক্সের অধ্যাপক পিকে খান জানান, একের পর এক ছোট মাত্রার কম্পন থেকেই বড় ভূমিকম্পের ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে। এই বিষয়ে কেন্দ্রের সতর্ক হওয়া উচিত।