চাঁচলে নিহার রঞ্জন ঘোষের সমর্থনে নির্বাচনী প্রচার শুরু

272

চাঁচল:তৃণমূল কংগ্রেসের সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শুক্রবার একুশের বিধানসভার প্রার্থীপদ ঘোষণা করেছেন। চাঁচল বিধানসভায় দলের প্রার্থী করেছেন মালদার বাসিন্দা তথা বিদায়ি বিধায়ক নিহার রঞ্জন ঘোষকে। শনিবার থেকে নিহার বাবুর সমর্থনে কলমবাগানে সড়কের ধারে দেওয়াল লিখন শুরু করে দলের বিভিন্ন শাখা সংগঠনগুলি।
চাঁচলের বাসিন্দাদের অনুমান ছিল স্থানীয় কাউকে হয়তো দিদি এবারের চাঁচল বিধানসভায় প্রার্থী করতে পারেন। কিন্তু তা হয়নি। প্রার্থী তালিকার দৌড়ে ছিলেন জেলা পরিষদের কৃষি কর্মাধ্যক্ষ এটিএম রফিকুল হোসেন,আরও এক জেলা পরিষদ সদস্য সামিউল ইসলাম,বর্ষীয়ান তৃণমূল নেতা আব্দুল খালেক,হেমন্ত শর্মা আরও অনেকে। নিহার বাবু এমনিতেই চাঁচলের বাসিন্দাদের কাছে অপরিচিত মুখ। এখন দেখার বহিরাগত প্রার্থী নিহার বাবুকে চাঁচলের বাসিন্দারা কতটা গ্রহণ করেন।

তবে চাঁচল বিধানসভায় বিরোধী হিসেবে বিজেপি ও বাম-কংগ্রেস জোট ছাড়াও মিম প্রার্থী থাকছে বলে খবর। এই হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে কতটা সাফল্য মিলবে শাসকদলের সেটা ভোটের ফলাফলই বলবে। এখানে কংগ্রেসের বিদায়ি বিধায়ক আসিফ মেহবুবের আলাদা জনপ্রিয়তা রয়েছে। আসিফ মেহবুব গতবার তৃণমূল কংগ্রেসের হেভিওয়েট প্রার্থী গায়ক সৌমিত্র রায়কে পঞ্চাশ হাজারেরও বেশি ভোটে পরাজিত করেছিলেন। সেই নিরিখে চাঁচলে এবারেও অনেকটাই এগিয়ে আসিফ মেহবুব।

- Advertisement -

চাঁচল-১ ব্লক আইএনটিটিউসির পক্ষ থেকে এদিন নিহার বাবুর সমর্থনে ফ্লেক্স টাঙিয়ে নির্বাচনী প্রচারের কাজ শুরু করা হয়। এদিন চাঁচলের নজরুল পল্লীতে ওই ফ্লেক্স উদ্ধোধনে উপস্থিত ছিলেন চাঁচল-১ ব্লক আইএনটিটিউসির সভাপতি দেবব্রত সিংহ,সহসভাপতি টিঙ্কু আলি,কলিগ্রাম গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান রেজাউল খান,ভগবানপুর অঞ্চল তৃণমূল কমিটির সহসভাপতি শাহজাহান আলিসহ আরও অনেকে।

চাঁচল-১ ব্লক আইএনটিটিউসির সভাপতি দেবব্রত সিংহ বলেন,‘চাঁচল-৪৫ নং বিধানসভায় অনেকেই প্রার্থীপদের দাবি করছিলেন। তবে দিদি যাকে যোগ‍্য ও ভালো মনে করে প্রার্থী হিসেবে মনোনীত করেছেন তা সকলেই মেনে নিয়েছি। স্থানীয় প্রার্থী নেই বলে অনেকেই সোশ‍্যাল মিডিয়ায় ক্ষোভ দেখাচ্ছেন। সেটা ঠিক নয়। দিদির আদর্শ নীতি মেনেই নিহার বাবুর সমর্থনে ঝাপিয়ে পড়তে হবে। স্বাস্থ‍্য সাথী,খাদ‍্যশ্রী,কৃষক বন্ধু,সবুজ সাথী,কন‍্যাশ্রী সহ রাজ‍্য সরকারের একাধিক প্রকল্প নিয়েই ভোট প্রচারের মূল ইস‍্যু থাকছে। ’

টিএমসিপি জেলা সাধারণ সম্পাদক বাবু সরকার বলেন,‘প্রার্থী ঘোষণার পর সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তা ঠিক হয়নি। দিদি যাকে প্রার্থী বানিয়েছেন আমাদের সকলকে তা মেনে নিতে হবে। প্রার্থী দেখে নয়,তৃণমূল সুপ্রিমোর আদর্শ নীতি ও উন্নয়নের প্রতীক জোড়াফুলকে সামনে রেখে লড়াই করতে হবে। ’

জেলা পরিষদের কৃষি কর্মাধ্যক্ষ এটিএম রফিকুল হোসেন জানান,চাঁচলে নিহার বাবুই জিতবেন। সেই ব্যাপারে একশো শতাংশ আশাবাদী তিনি।