তৃণমূল প্রার্থীকে ‘লাল সেলাম’ বাম কর্মীর

130

বর্ধমান: ’খেলা হবে’ শ্লোগান তুলে ভোটের প্রচারে বের হওয়া তৃণমূল প্রর্থীকে লাল ঝান্ডা কাঁধে নিয়েই ‘লাল সেলাম’ জানালেন এক বামকর্মী। বিনিময়ে তৃণমূল প্রার্থী অলোক মাঝি সৌজন্য দেখিয়ে প্রবীন ওই বামকর্মী অরবিন্দ বন্দ্যোপাধ্যায়কে হাত জোড় করে নমস্কার জানালেন। উত্তপ্ত বাংলার ভোট রাজনীতির লড়াইয়ের ময়দান। তারই মধ্যে বুধবার বিকালে এমনই এক বিরল রাজনৈতিক সৌজন্য বিনিময়ের দৃশ্য প্রত্যক্ষ করলেন পূর্ব বর্ধমানের জামালপুর বিধানসভার রেরুগ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার মানুষজন। যুযুধান দুই রাজনৈতিক দলের নেতা, কর্মী ও প্রার্থীর একে অপরের প্রতি এমন সৌজন্য বিনময় চাক্ষুষ করে কার্যত অভিভূত বেরুগ্রাম এলাকার ভোটাররা। তাঁরা আবেদন রাখলেন হিংসা হানাহানি দূরে সরিয়ে এমনই সৌজন্যের পরিবেশে মুখরিত হোক এবারের ভোট উৎসব। তবে সিপিএমের প্রতি তৃণমূলের এত সৌজন্য বোধ দেখানো নিয়ে কটাক্ষ করতে ছাড়েনি বিজেপি।

তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্ব জামালপুর বিধানসভা আসনে প্রার্থী করেছে অলোক কুমার মাঝিকে। তাঁর বিরুদ্ধে বামেরা প্রার্থী করেছে গত বিধানসভা নির্বাচনে জামালপুর আসন থেকে জয়ী হওয়া সমর হাজরাকে। অপরদিকে এই আসনে বিজেপির প্রার্থী হয়ে প্রতিদন্ধিতা করছেন বলরাম ব্যাপারী। সব রাজনৈতিক দলের প্রার্থীরাই জোরদার প্রচারে নেমে পড়েছেন। ভেটের প্রচার ঘিরেই এখন জামালপুর সরগরম।

- Advertisement -

জামালপুর বিধানসভার বাম প্রার্থী সমর হাজরা বলেন, ‘আমরাও চাই রাজনীতি থেকে শিষ্ঠাচার ও সৌজন্য বোধ যেন হারিয়ে না যায়। যে কোনও ব্যক্তি যে কোনও রাজনৈতিক দলের সঙ্গেই যুক্ত থাকতে পারেন। তাঁর পছন্দ মতো প্রার্থীকে তিনি ভোট দেবেন, গনতন্ত্রে এটাই কাঙ্খিত। আমরা বামপন্থীরা সেই মতাদর্শেই বিশ্বাসী। আমরা চাই সাধারণ মানুষের স্বতঃস্ফূর্ত অংশ গ্রহণে ভোট উৎসবের চেহারা নিক।’

বিজেপি প্রার্থী বলরাম ব্যাপারী অবশ্য সিপিএম ও তৃণমূলের একে অপরের প্রতি এত সৌজন্য দেখানোকে কটাক্ষ করতে ছাড়েননি। পাল্টা প্রতিক্রিয়ায় বলরামবাবু বলেন, ‘সৌজন্যের ঘনঘটা দেখে মনে হচ্ছে বিজেপিকে হারাতে তলে তলে সিপিএম ও তৃণমূল অলিখিত জোট গড়েছে।’