বড়োদিঘি চা বাগানে হাতির তাণ্ডব অব্যাহত

177

চালসা: মেটেলি ব্লকের বড়োদিঘি চা বাগানে হাতির হানা অব্যাহত। বুধবার রাতে চা বাগানের রামচন্দ্র লাইনে তাণ্ডব চালিয়ে হাতিটি একটি শ্রমিক আবাস গুঁড়িয়ে দেয়।

ঘর থেকে শিশুকে নিয়ে পালিয়ে কোনওক্রমে প্রাণে বাঁচে ওই পরিবার। বুধবার রাত প্রায় ১০টা নাগাদ লাটাগুড়ি জঙ্গল থেকে একটি হাতি বের হয়ে বাগানের রামচন্দ্র লাইনে হানা দেয়। সেখানে রঞ্জিত নাগেসিয়ার শ্রমিক আবাস গুঁড়িয়ে দেয় হাতিটি। ঘরের দেওয়াল ভেঙে সাবাড় করে ঘরে মজুত খাদ্যসামগ্রী। নষ্ট করে যাবতীয় আসবাবপত্রও।

- Advertisement -

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার রাত্রে বাগানের ওই লাইনেই হাতির হানায় বিনোদ নাগেসিয়া নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়। তার একদিন পরেই ফের একই এলাকায় হাতি তাণ্ডব চালাল। লাগাতার হামলায় আতঙ্কিত বাগানের জনগণ। বাগানে হাতির হানা রুখতে বনদপ্তর কোনও ব্যবস্থা নিচ্ছেন না বলে অভিযোগ বাসিন্দাদের। ঘটনার পর বৃহস্পতিবার ভোর থেকে লাটাগুড়ি রেঞ্জের বড়োদিঘি বিট অফিসে বিক্ষোভ দেখান তাঁরা।

বাগানে হাতির হানা রুখতে বনদপ্তরকে প্ৰয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান তাঁরা। এলাকার বাসিন্দা গোবিন্দ লোহার বলেন, বাগানে লাগাতার তাণ্ডব চালাচ্ছে হাতি। ঘর বাড়ির ক্ষতি করলেও বনদপ্তর কোনও ব্যবস্থা নিচ্ছে না। দ্রুত ব্যবস্থা না নিলে আগামীতে বৃহত্তর আন্দোলন হবে। এদিন ঘটনার খবর পেয়ে বড়োদিঘি বিট অফিসে আসেন লাটাগুড়ির রেঞ্জার শুভ্রশঙ্খ দত্ত। তিনি বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলেন।

রেঞ্জার জানান, বনদপ্তরের তরফে বাসিন্দাদের হাতি তাড়ানোর জন্য সার্চ লাইট ও পটকা দেওয়া হয়েছে।