বীরপাড়ায় অব্যাহত দলছুট হাতির হানা, আতঙ্ক এলাকায়

125

বীরপাড়া: ফের বীরপাড়ায় হানা দিল দলছুট দাঁতাল হাতি। ঘটনায় ব্যাপক আতঙ্ক ছড়িয়েছে এলাকায়। স্থানীয়রা জানান, বীরপাড়ায় হাতির হানা এবারই প্রথম নয়। গত বছরও দু’বার বীরপাড়ায় ঢুকে পড়েছিল হাতি। বন দপ্তর সূত্রের খবর, শনিবার রাত সাড়ে ১২টা নাগাদ উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে বীরপাড়ায় ঢুকে পড়ে একটি দলছুট হাতি। সেটি দলমোর বনাঞ্চল থেকে এসেছিল বলে সন্দেহ বনকর্মীদের। টিনের বেড়া ভেঙে সেটি বন দপ্তরের দলগাঁও রেঞ্জের অফিস চত্বরে ঢুকে পড়তেই হইচই শুরু হয় এলাকায়। এরপর সেটি সুভাষপল্লি হয়ে বীরপাড়ার কেন্দ্রস্থলে অবস্থিত দলগাঁও রেলস্টেশন চত্বরে ঢুকে পড়ে। বনকর্মীদের তাড়া খেয়ে এরপর হাতিটি উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলের লাইন ও ৪৮ নম্বর এশিয়ান হাইওয়ে পার হয়ে ডিমডিমা চা বাগানের ভিতর দিয়ে দলমণি বনাঞ্চলের দিকে চলে যায়।

গত বছরের ৫ ডিসেম্বর রাতেও একটি দাঁতাল হাতি বীরপাড়া দাপিয়ে বেড়িয়েছিল। বীরপাড়া লঙ্কাপাড়া রোড সহ দলগাঁও রেলস্টেশন চত্বরে সেবারও হানা দেয় দাঁতালটি। গত বছরেরই ২৪ জুন বীরপাড়ায় হানা দিয়ে গেট ভেঙে বীরপাড়া রাজ্য সাধারণ হাসপাতালের চত্বরে ঢুকে পড়ে একটি দাঁতাল। বীরপাড়ার বাসিন্দাদের বক্তব্য, বীরপাড়ার পরিবেশ অনেকটা শহরের মতো হলেও বর্তমানে বন লাগোয়া এলাকার গ্রামগুলোর বাসিন্দাদের মতোই আতঙ্কে থাকতে হচ্ছে তাঁদের।

- Advertisement -

বীরপাড়ার উত্তর-পশ্চিমে দলমোর বনাঞ্চল ও দক্ষিণ পশ্চিমে দলমণি বনাঞ্চল অবস্থিত। ওই বনাঞ্চলগুলি থেকে বেরিয়ে হাতির পাল মাঝে মাঝেই বীরপাড়ার আশেপাশে পৌঁছে যাচ্ছে। মাঝে মাঝে এলাকায় পৌঁছে যাচ্ছে ১০-১২ কিমি দূরে অবস্থিত রেতি বনাঞ্চলের হাতির পাল। তবে, সবচেয়ে বেশি আতঙ্কের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে দলছুট হাতিগুলি। সেগুলি বীরপাড়ার অলিগলিতেও ঢুকে পড়ছে। দলগাঁওয়ের রেঞ্জার দোরজি শেরপা জানান, এরাতে হাতির হানায় কোনও ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। তবে পরপর বীরপাড়ায় হাতি ঢুকে পড়ার ঘটনায় নজরদারি আরও বাড়ানো হচ্ছে।