হাতি দিবসেও পুরোদমে ডিউটি করল গরুমারার কুনকিরা

400

লাটাগুড়ি, ১২ অগাস্ট : বিশ্ব হস্তি দিবসেও ছাড় মিলল না গরুমারা অভয়ারণ্যের কুনকিদের। চোরাশিকারিদের হামলার আশঙ্কায় দিনভর নজরদারির ডিউটি করল তারা। তবে বনদপ্তরের তরফে হাতি দিবস উপলক্ষে ধূপঝোড়া এলিফ্যান্ট ক্যাম্পে কুনকিদের জন্য স্বাস্থ্যপরীক্ষা শিবির ও বিশেষ মেনুর ব্যবস্থা ছিল। মাহুত ও পাতাওয়ালাদের জন্যও স্বাস্থ্যপরীক্ষা শিবিরের ব্যবস্থা ছিল।

সোমবার ছিল বিশ্ব হস্তি দিবস। প্রতি বছর এই দিনটিতে নিজেদের কাজ থেকে কিছুটা ছাড় পেত গরুমারার কুনকি হাতিরা। তবে এবারের ছবিটা আলাদা। আগামী ১৪ অগাস্ট পূর্ণিমা। চাঁদের আলো থাকার সুযোগে গরুমারায় সক্রিয় হযে উঠতে পারে চোরাশিকারীদের দল। এমনিতেই গরুমারার গন্ডাররা চোরাশিকারীদের নজরে রয়েছে। তাই এবার কুনকিদের টহলদারিতে ছাড় দেওয়া হয়নি। বনদপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, গত বছর ডিসেম্বরে পূর্ণিমার সুযোগে একটি গন্ডার মেরে তার খড়্গ কেটে নিযে চলে যায় চোরাশিকারীরা। তারপর থেকে পূর্ণিমার সময় অভয়ারণ্যের নিরাপত্তা নিয়ে কোনো খামতি রাখা হচ্ছে না। রাতভর চলছে টহলদারি।

- Advertisement -

তবে সারাদিন ব্যস্ত থাকলেও বিকালে ধূপঝোরায় হাতিদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা করা হয়। কাবেরী, শ্রাবণী, হিলারি সহ ১৯টি কুনকি হাতির স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়। প্রত্যেক কুনকি পরীক্ষায় পাশ করেছে। হাতি দিবস উপলক্ষ্যে মেনুতে ছিল পাকা কলা, গুড় ও আখ। হাতিদের সঙ্গে তাদের দায়িত্বে থাকা মাহুত ও পাতাওয়ালাদেরও চোখ ও স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়। গরুমারা সাউথ রেঞ্জের রেঞ্জার অয়ন চক্রবর্তী জানান, বছরের প্রতিটা দিন নিজেদের কর্তব্যে অবিচল গরুমারার কুনকিরা। তা সে হস্তি দিবস হোক বা আর পাঁচটা সাধারণ দিন। এদিনের স্বাস্থ্য পরীক্ষা শিবিরে জলপাইগুড়ি বনবিভাগের ডিএফও মৃদুল কুমার, গরুমারা বন্যপ্রাণী বিভাগের এডিএফও রাজু সরকার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।