এনআরইজিএস প্রকল্পের লক্ষ লক্ষ টাকা তছরুপের অভিযোগ

280

বর্ধমান: এনআরইজিএস প্রকল্পে ফুটবল মাঠ ও ক্যানেলের সংস্কার কাজে ৭ লক্ষ ৩ হাজার ৬১৮ টাকা তছরুপের অভিযোগ উঠেছে ৬ সুপারভাইজারের বিরুদ্ধে। পূর্ব বর্ধমানের খণ্ডঘোষ ব্লকের শশঙ্গা পঞ্চায়েত এলাকার ঘটনা। তদন্তে তছরুপের বিষয়টি সামনে আসার পর গত ৩ ডিসেম্বর খণ্ডঘোষ থানায় অভিযোগ দায়ের করেন খণ্ডঘোষের বিডিও। দায়ের হওয়া অভিযোগের ভিত্তিতে খণ্ডঘোষ থানার পুলিশ সরকারি অর্থ আত্মসাতের ধারায় মামলা রুজু করেছে। যার কেস নম্বর ১১/২০২১। যদিও ঘটনায় জড়িতদের কেউ এখনও গ্রেপ্তার হয়নি। যদিও সদ্য খণ্ডঘোষ ব্লকের দায়িত্ব গ্রহণ করা বিডিও সত্যজিৎ কুমার বলেন, ‘অভিযোগ দায়েরের বিষয়টি আমার জানা নেই।’

খণ্ডঘোষ ব্লক প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, খণ্ডঘোষের নাড়িচায় ১০০ দিনের প্রকল্পে বাগান ও ফুটবল মাঠের সংস্কারের কাজ করা হয়। সেই মাঠের সংস্কারের কাজ নিয়ে নানা মহল থেকে বিডিও অফিসে অভিযোগ জমা পড়ে। তার ভিত্তিতে তদন্তের নির্দেশ দেন বিডিও। তদন্তে ৪ লক্ষ ২৫ হাজার টাকা নয়ছয়ের বিষয়টি ধরা পড়ে। একইভাবে খণ্ডঘোষের শশঙ্গা পঞ্চায়েতের কাকুনা থেকে শশঙ্গা পর্যন্ত ক্যানেলের সংস্কার কাজ নিয়েও বিডিও অফিসে অভিযোগ জমা পড়ে। তার তদন্তে আবার ২ লক্ষ ৭৮ হাজার ৬১৮ টাকার তছরুপ ধরা পড়ে। খণ্ডঘোষের বিডিও এই বিষয়টি জেলাশাসককে জানান। জেলাশাসক এফআইআর করার জন্য বিডিওকে নির্দেশ দেন। সেইমতো বিডিও থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।

- Advertisement -

তবে অভিযোগ দায়ের হলেও থানা কোনও ব্যবস্থা না নেওয়ায় বিষয়টি জেলাশাসককে জানান বিডিও। জেলাশাসক সরকারি অর্থ নয়ছয়ের বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য জেলার পুলিশ সুপারকে চিঠি দেন। চিঠি পেয়ে পুলিশ সুপার খণ্ডঘোষ থানার ওসিকে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য নির্দেশ দেন। পুলিশ সুপারের নির্দেশ পাওয়ার পরেই নড়েচড়ে বসে খণ্ডঘোষ থানার পুলিশ। শেষ পর্যন্ত গত শনিবার তছরুপের ঘটনার বিষয়ে খণ্ডঘোষ থানার পুলিশ নির্দিষ্ট ধারায় মামলা রুজু করে।

শশঙ্গা পঞ্চায়েতের প্রধান প্রকাশ ঘোষ বলেন, ‘মামলা রুজু হয়েছে কিনা জানা নেই। তবে, দিল্লি থেকে টিম এসে তদন্ত করে গিয়েছে। কিছু সমস্যা থাকলেও থাকতে পারে।’

অন্যদিকে, খণ্ডঘোষ ব্লক তৃণমূলের সভাপতি তথা পূর্ব বর্ধমান জেলাপরিষদের সদস্য অপার্থিব ইসলাম এই বিষয়ে বলেন, ‘ঘটনাটি প্রায় তিন-চার বছর আগেকার। কেন্দ্রের টিম এসে প্রকল্পগুলির কাজের তদন্ত করে গিয়েছে। তাদের মনে হয়েছে, কাজ ঠিকঠাক হয়নি। ওইসব প্রকল্পের কাজ করা শ্রমিকরা তাই সেইমতো টাকা ফেরতও দিয়ে দিয়েছেন। তবুও প্রশাসনিক নিয়ম মেনে হয়তো অভিযোগ দায়ের করতে হয়েছে।’ এবিষয়ে আইন আইনের পথে চলবে বলে মন্তব্য করেছেন অপার্থিব ইসলাম।