রেফারির ভুল নিয়ে সরব প্রাক্তনরা

লন্ডন : চোখে জল নেই। আছে একরাশ শূন্যতা। মাথা হেঁট নয়, শক্ত। চোয়াল দৃঢ়। ম্যাচ শেষে বারবার ক্যামেরা নজরবন্দি করছিল তাঁকে। আর ততবারই চেনা এই অবয়বে ধরা পড়ছিলেন ক্যাসপার স্কেমিচেল। ইউরো কাপের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে তিনিই ট্র‌্যাজিক নায়ক। বরং জিতেও খলনায়কে পরিণত হয়েছেন রাহিম স্টার্লিং। ভুলেভরা রেফারিংয়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে রেফারি ড্যানি ম্যাকিলে-কে ঘিরে।

মুখ খুলেছেন ক্যাসপারের বাবা কিংবদন্তি গোলরক্ষক পিটার স্কেমিচেল। রেফারিকে কাঠগড়ায় তুলে ইউরোজয়ী ড্যানিশ গোলরক্ষকের তোপ, পেনাল্টির সিদ্ধান্ত মারাত্মক ভুল। রেফারির এই ভুল নিয়ে দীর্ঘসময় চর্চা চলবে। এটা মেনে নেওয়া কঠিন। কারণ পেনাল্টির সিদ্ধান্ত সম্পূর্ণ অন্যায্য।

- Advertisement -

ভিএআরের সহায়তা নিয়ে কেন এমন ভুল করলেন রেফারি? প্রশ্ন তুলেছেন হোসে মোরিনহো। পর্তুগিজ কোচের কথায়, স্টার্লিংয়ের ফাউল কোনওমতেই পেনাল্টি নয়। সঙ্গে যোগ করেছেন, যোগ্য দল হিসেবে ইংল্যান্ড ফাইনালে গিয়েছে। ডেনমার্কের থেকে অনেক ভালো খেলেছে। কিন্তু পেনাল্টির সিদ্ধান্ত সমর্থনযোগ্য নয়। ইউরোর সেমিফাইনালে এমন ভুলেভরা রেফারিং নিয়ে সরব হয়েছেন স্পেশাল ওয়ান।

মোরিনহোর মতো ভিএআরের ভূমিকায় অস্বচ্ছতা দেখছেন আর্সেন ওয়েঙ্গার। প্রাক্তন আর্সেনাল কোচের প্রশ্ন, ম্যাচ নির্ধারক পরিস্থিতিতে কেন ভিডিও রিপ্লে দেখলেন না রেফারি? ভিএআরের অদূরদর্শিতায় রেফারির ভাবমূর্তি ক্ষতিগ্রস্ত হল বলেও জানান তিনি। যদিও বিতর্ক সরিয়ে জয়টাকেই বড় করে দেখতে চান ইংল্যান্ডের প্রাক্তন তারকা গ্যারি নেভিল।

ইংল্যান্ডের কাছে এইভাবে হার মেনে নিতে পারছেন না ডেনমার্কের কোচ ক্যাসপার ঝুলমান্ড। স্কেমিচেলদের প্রশিক্ষকের কথায়, আমরা ভুল সিদ্ধান্তের শিকার হয়েছি। ওটা পেনাল্টি ছিল না। আমরা প্রচণ্ড হতাশ। সঙ্গে যোগ করেছেন, খেলায় হার-জিত থাকে। তবে এইভাবে হার মেনে নেওয়া কঠিন। ছেলেদের প্রচণ্ড কষ্ট হচ্ছে জানি। ওরা নিজেদের সেরাটা মাঠে দিয়েছিল। টুর্নামেন্ট থেকে এইভাবে বিদায় কখনও আসা করিনি। সবমিলিয়ে ড্যানিশ ডিনামইটের ক্ষোভের আগুন কমার নয়।