পিচ নিয়ে আইসিসির কাছে অভিযোগের ভাবনা ইংল্যান্ডের

আহমেদাবাদ : পিচ বিতর্কে আইসিসির কাছে অভিযোগের কথা ভাবছে ইংল্যান্ড। ম্যাচ শেষে বিতর্ক উসকে দিয়েছিলেন অধিনায়ক জো রুট। বলেছিলেন, মোতেরার বাইশ গজ ক্রিকেটের জন্য উপযুক্ত কি না, তা ক্রিকেটাররা নয় বিচার করা উচিত আইসিসির। খবর, আইসিসির কাছে লিখিত অভিযোগের বিষয়টিও ভাবনায় রয়েছে ইংল্যান্ড শিবিরের।

কোচ ক্রিস সিলভারউডকে এব্যাপারে প্রশ্ন করা হলে, তিনি অবশ্য পরিষ্কার করে কিছু বলার পথে হাঁটেননি। কিছুটা ধোঁয়াশা রেখে বলেন, ড্রেসিংরুমে আমাদের মধ্যে বেশ কিছু বিষয়ে কথাবার্তা হয়েছে। একইসঙ্গে তিন দিন আগে ম্যাচ শেষ হওয়ায় আমরা হতাশ। হতাশ দর্শকরাও। ম্যাচ রেফারি জাভাগল শ্রীনাথের সঙ্গে কথা বলেছি আমরা। তবে তা পিচ নিয়ে নয়। জো (রুট) এবং আমি আলোচনায় বসে এব্যাপারে পরবর্তী পদক্ষেপ ঠিক করব।

- Advertisement -

সিলভারউড পিচ বিতর্কের চেয়ে জোর দিচ্ছেন ব্যর্থতা থেকে শিক্ষা নেওয়াতে। পাখির চোখ চতুর্থ টেস্ট। ব্যাটিং ব্যর্থতার কথাও স্বীকার করে বলেন, জো ৮ রানে ৫ উইকেট নিয়েছে। তবে পিচে যাই থাকুক না কেন, ভারত আমাদের থেকে ভালো খেলেছে। আর প্রথম ইনিংসে আমাদের সামনে বড় স্কোরের সুযোগ ছিল। এখন নিজেদের ভুলভ্রান্তি শুধরে উন্নতিতে নজর দেওয়া প্রয়োজন। অবশ্য এই পিচ খেলোয়াড়দের চূড়ান্ত পরীক্ষায় ফেলেছিল। যে অভিজ্ঞতা আমাদের ছিল না। পিচ থেকে আরও সাহায্য মিলবে, আশা করেছিলাম।

২০১৯-এ ইংল্যান্ডের দায়িত্ব নেওয়ার পর সিলভারউড প্রথম ইনিংসে বিগস্কোরে জোর দিয়েছেন। সুফলও পেয়েছেন। সুরটা কেটেছে শেষ দুই ম্যাচে। রুটদের হেড কোচের মতে, পোপ, ক্রলি, সিবলিদের কাছে নতুন অভিজ্ঞতা। আমার বিশ্বাস, এই শিক্ষা, অভিজ্ঞতা ওদের সমৃদ্ধ করবে। আগামী দিনে যখন এই ধরনের পিচে খেলবে ঘাবড়ে যাবে না। চ্যালেঞ্জ নেওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় স্কিলটা রপ্ত করে নেবে। হয়তো বর্তমান মুহূর্তটা যন্ত্রণাদায়ক। তবে এটা একইসঙ্গে ওদের জন্য শিক্ষণীয়ও।

এদিকে, চতুর্থ টেস্টের আগে দেশে ফিরে গেলেন ক্রিস ওকস। বছর একত্রিশের এই পেস-অলরাউন্ডার দক্ষিণ আফ্রিকা, শ্রীলঙ্কা ও চলতি ভারত সিরিজের দলে থাকলেও, খেলার সুযোগ পাননি। চতুর্থ টেস্টেও খেলার সম্ভাবনা নেই। তাই দীর্ঘদিন পরিবার ছেড়ে থাকা ওকসকে বাড়ি যাওয়ার অনুমতি।