দখলদার উচ্ছেদের নোটিশ

179

পুরাতন মালদা: পূর্ত দপ্তরের জায়গা দখল করে বেআইনিভাবে গজিয়ে উঠছে অসংখ্য পাকা দোকান। এর বিরুদ্ধে পুরাতন মালদা পুরসভা কর্তৃপক্ষকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার নোটিশ দিল সংশ্লিষ্ট দপ্তর। যদিও পুরাতন মালদা পুরসভা প্রশাসক কর্তৃপক্ষের বক্তব্য, যেহেতু জায়গাটি পূর্ত দপ্তরের। কাজেই সেই জায়গা দখল করার ক্ষেত্রে পূর্ত দপ্তরকে এগিয়ে আসতে হবে। পুরসভা থেকে ওইসব দোকানঘর ভাঙার কোনওরকম উদ্যোগ নেওয়া হবে না। যা করার পূর্ত দপ্তরকেই করতে হবে।

গত পুর বোর্ডের আমলে কীভাবে পূর্ত দপ্তরের জায়গায় অসংখ্য বেআইনিভাবে পাকা দোকান গজিয়ে উঠেছে, তা নিয়েও এখন পুরাতন মালদা পুরসভা এলাকাজুড়ে নতুন করে অভিযোগ উঠতে শুরু করেছে। এব্যাপারে ১৭ অগাস্ট পূর্ত দপ্তরের তরফে পুরাতন মালদা পুরসভার ১৯ নম্বর ওয়ার্ড সংলগ্ন মৌলপুর গ্রামীণ হাসপাতাল লাগোয়া পূর্ত দপ্তরের জায়গার ওপর বেআইনি দোকানঘর ভেঙে দেওয়ার নোটিশ সংশ্লিষ্ট পুরসভা কর্তৃপক্ষকে দেওয়া হয়েছে।

- Advertisement -

পুরাতন মালদা পুরসভার প্রশাসকমণ্ডলীর চেয়ারপার্সন বশিষ্ঠ ত্রিবেদী জানিয়েছেন, প্রাথমিক একটা চিঠি পূর্ত দপ্তর পুরসভাকে পাঠিয়ে দিয়ে তাদের দায় সেরেছে। কিন্তু পূর্ত দপ্তরের জায়গার ওপর বেআইনিভাবে তৈরি এই দোকানঘরগুলির বিষয়ে কখনোই সমর্থন করা যায় না। অনেক আগে এগুলো ভাঙা উচিত ছিল। কিন্তু বর্তমান পুর প্রশাসক কর্তৃপক্ষ ওই সব দোকান ভাঙার কোনও দায়িত্ব নিবে না। যা করার পূর্ত দপ্তরকে করতে হবে। যেহেতু সেটা ওদের জায়গায়। কাজেই এক্ষেত্রে পূর্ত দপ্তরকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিয়ে কাজ করতে হবে।

এদিকে, পূর্ত দপ্তরের এই নির্দেশ পুরসভাকে দেওয়ার বিষয়টি জানাজানি হতেই অসন্তোষ ছড়িয়েছে মৌলপুরের ব্যবসায়ীদের মধ্যে। ওই এলাকার ব্যবসায়ীদের বক্তব্য, গত ৪০ বছর ধরে এখানে বহু ব্যবসায়ীরা রুজি রোজগার করে সংসার চালান। এখন হঠাৎ করে এসব ভেঙে দেওয়ার কথা প্রশাসনের তরফে বলা হচ্ছে। যদি পূর্ত দপ্তর ও পুরসভা দোকান ভাঙার উদ্যোগ নেয় তাহলে ব্যবসায়ীদের বুকের উপর দিয়ে গাড়ি চালিয়ে তা করতে হবে বলে হুমকি দেন তাঁরা। যদিও পুরাতন মালদা পুরসভার প্রাক্তন চেয়ারপার্সন কার্তিক ঘোষ এপ্রসঙ্গে কোনও মন্তব্য করেননি।