আর্থিক প্রতিবন্ধকতাকে পেছনে ফেলে নজরকাড়া রেজাল্ট রাজীবের

332

দেওয়ানহাট: বাবা সাইকেলে করে কোচবিহার শহরে সবজি বিক্রি করেন। সংসারে নিত্য অভাব লেগেই রয়েছে। তবুও সমস্ত অভাব, প্রতিবন্ধকতাকে পেছনে ফেলে কোচবিহার-১ ব্লকের ঘেঘিরঘাট এলাকার রাজীব মজুমদার এবারের মাধ্যমিকে ৬১৫ পেয়ে নজরকাড়া ফল করেছে। দেওয়ানহাট হাইস্কুলের এই ছাত্র বাংলায়-৯০, ইংরেজিতে-৮২, ইতিহাসে-৯০, ভূগোলে-৮১, অঙ্কে-১০০, ভৌতবিজ্ঞানে-৮২ ও জীবনবিজ্ঞানে-৯০ পেয়েছে। উচ্চমাধ্যমিকে বিজ্ঞান বিভাগে পড়াশোনা করে সে ভবিষ্যতে ইঞ্জিনিয়ার হতে চায়। এক্ষেত্রে ডিওয়াইএফআই ও এসএফআই যৌথভাবে তাঁর পড়াশোনার ক্ষেত্রে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিল।

রাজীবের বাবা শ্রীপদ মজুমদার বলেন, ‘সামান্য রোজগারে দুই ছেলের পড়াশোনার খরচ সামলানো অত্যন্ত কঠিন। এজন্য মাঝেমধ্যেই চড়া সুদে টাকা ধার করতে হয়। করোনা পরিস্হিতিতে রোজগার একেবারে কমে গিয়েছে। এই অবস্হায় উচ্চমাধ্যমিকে রাজীবের পড়ার খরচ নিয়ে খুব চিন্তায় ছিলাম। ডিওয়াইএফাই ও এসএফআই এগিয়ে আসায় তাঁদের প্রতি কৃতজ্ঞ।’

- Advertisement -

ডিওয়াইএফআই-এর ধলুয়াবাড়ি লোকাল কমিটির সম্পাদক  তন্ময় সরকার ও এসএফআই-এর ধলুয়াবাড়ি আঞ্চলিক কমিটির সম্পাদক জিৎকুমার পাল জানান, উচ্চমাধ্যমিক স্তরে রাজীবের পড়াশোনা সংক্রান্ত সমস্ত প্রয়োজন তাঁরা মেটাবেন।ইতিমধ্যে বাড়িতে গিয়ে এই কৃতী পড়ুয়ার সঙ্গে দেখা করেছেন।