চোলাই মদের বিরুদ্ধে অভিযানে বাধার মুখে আবগারি দপ্তর

197

ওদলাবাড়ি: চোলাই মদ তৈরির কারখানাগুলোর বিরুদ্ধে অভিযান চালাতে গিয়ে তৃণমূলের পতাকা হাতে একদল কর্মী ও সমর্থকদের বাঁধার মুখে পড়তে হল আবগারি দপ্তরকে। গত দুদিন ধরে মাল মহকুমার সাওগাঁও বস্তি, এলেনবাড়ি, দিলুবস্তি সহ বিভিন্ন এলাকায় চোলাই মদ তৈরির কারখানাগুলো ভেঙে দিতে বড় অভিযান চালানো হয় আবগারি দপ্তরের তরফে। আবগারি বিভাগের জলপাইগুড়ি ডিভিশনের জয়েন্ট কমিশনার কামার জেলিস, মাল রেঞ্জের ডেপুটি এক্সাইজ কালেক্টর সম্বিত প্রধান প্রমুখের নেতৃত্বে মাল থানার পুলিশের একটি দলের সঙ্গে এই অভিযান চালানো হয়।

বৃহস্পতিবার অভিযান চলাকালীন ক্রান্তি ব্লকের রাজাডাঙা গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত বারোঘড়িয়া, ষোলোঘড়িয়া ও মেচবস্তি এলাকায় স্থানীয় কিছু বাসিন্দা তৃণমূলের পতাকা হাতে নিয়ে আবগারি দপ্তরের আধিকারিকদের অভিযান চালাতে বাঁধা দেন। বিক্ষোভ প্রদর্শনও করা হয় বলে আবগারি দপ্তর সূত্রে জানানো হয়েছে। যদিও তৃণমূলের পতাকা হাতে বিক্ষোভকারীরা দলের কেউ নয় বলে মন্তব্য করেছেন তৃণমুল কংগ্রেসের ক্রান্তি ব্লক কমিটির সভাপতি মেহবুব আলম। মেহবুব বলেন, ‘বিক্ষোভকারীরা হয়তো কোনওভাবে তৃণমূলের পতাকা সংগ্রহ করে সরকারি কাজে বাঁধা দিতে গিয়েছেন। ওনাদের সঙ্গে দলের কোনও সম্পর্ক নেই।‘

- Advertisement -

বিষয়টি নিয়ে তৃণমূলকে কটাক্ষ করতে ছাড়েননি বিরোধীপক্ষ। জাতীয় কংগ্রেসের মাল ব্লক কমিটির সভাপতি যোগেন সরকার বলেন, ‘সরকারি দপ্তরের কাজ আধিকারিকরা সরকারি নির্দেশিকা মেনেই করবেন এটাই স্বাভাবিক। আসলে দলীয় পতাকার আড়ালে সমস্ত দূর্নীতি ধামাচাপা দিতে সক্রিয় হয়ে উঠেছে তৃণমূল। আর কত নীচে নামবে দলটি?’

মাল রেঞ্জের ডেপুটি এক্সাইজ কালেক্টর সম্বিত প্রধান জানান, ক্ষোভ-বিক্ষোভের মাঝেই দুদিন ব্যাপী অভিযানে আনুমানিক ১৩ লক্ষ টাকার চোলাই মদ ও মদ তৈরির ফার্মেন্টেড ওয়াশ নষ্ট করা হয়েছে। প্রত্যন্ত গ্রামগুলোতে গজিয়ে ওঠা কারখানাগুলো এদিন ভেঙে দেওয়া হয়েছে। অভিযানে কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি।