ওদের কৃষ্ণা থাকলে আমাদের আছে পিলকিনটন : ফক্স

সুস্মিতা গঙ্গোপাধ্যায়, কলকাতা : শুরর দিকে চোট-আঘাত ও কার্ড সমস্যার জন্য শুধ দল নয়, তাঁকেও ভুগতে হয়েছে ব্যাক্তিগতভাবে। কিন্তু যত সময় গড়িয়েছে ড্যানি ফক্স বুঝিয়ে দিয়েছেন, কেন তাঁকেই নেতৃত্বের জন্য বেছে নেওয়া হয় মরশুমের শুরুতে। মাঠে এবং মাঠের বাইরে ঠান্ডা মাথায় নেতৃত্ব দিয়ে দলকে একটা সম্মানজনক জায়গায় পৌঁছে দেওয়া ছাড়াও আপাতত ডার্বি জিতে সমর্থকদের খুশি করাই একমাত্র লক্ষ্য। ফিরতি মহারণের আগে সুদূর গোয়া থেকে উত্তরববঙ্গ সংবাদের সামনে নিজেদের এবং প্রতিপক্ষ শিবিরকে নিয়ে অকপট ফক্স –

প্রশ্ন : এখন তো আপনাদের দল বেশ একটা ছন্দে এসে গিয়েছে। ডার্বির জিততে কতটা আত্মবিশ্বাসী ও আশাবাদী আপনি?

- Advertisement -

ফক্স : অবশ্যই আত্মবিশ্বাসী এবার। এখন আমাদের দল খুব ভালো খেলছে। ছন্দ ফিরেছে খেলার মধ্যে। আমাদের মাথা ঠান্ডা রেখে নিজেদের গেম প্ল্যান অনুযায়ী খেলতে হবে। আশা করছি, শুক্রবার আমরা ভালো খেলব এবং জিতব। সমর্থকরা মাঠে থাকলে আরওবেশি ভালো খেলা যেত। তবে জানি, দূর থেকে হলেও ওঁরা সবসময় আমাদের উৎসাহ দিচ্ছেন। যেটা ভালো খেলার জন্য খুবই দরকার। প্রথম দফায় ম্যাচটা আমরা জিততে পারিনি কারণ সেবার ওটাই আমাদের লিগে প্রথম খেলা ছিল। এমনিতেই নতুন ক্লাব হিসাবে সবে শুরু করি। তাছাড়া ভালোভাবে নিজেদের প্রস্তুতিরও সময় পাইনি। সবমিলিয়ে ফল ভালো হয়নি। তবে এবার পরিস্থিতি অন্য। আশা করছি, খেলার ফল আমাদের পক্ষেই যাবে।

প্রশ্ন : ব্রাইট এনুবাখারের যোগদানে দল কতটা উপকৃত হয়েছে ?

ফক্স : সত্যিই ব্রাইট একজন ভালো ফুটবলার। ও আসায় দল অসম্ভব উপকৃত হয়েছে। এরইমধ্যে তিনটে গোল করে ফেলেছে। এটা কিন্তু কম কথা নয়। গোলের সামনে মাথা ঠান্ডা রাখতে পারে। ও এখন আমাদের দলের খুব গুরুত্বপূর্ণ ফুটবলার। ব্রাইট ছাড়া মাতিরও চারটি গোল রয়েছে। ফলে আমাদের গোল করার লোক আছে, এটুকু বলতে পারি।

প্রশ্ন : ব্রাইট ছাড়াও দলে রাজু গায়কোয়াড় ও অঙ্কিত মুখোপাধ্যায় শুরুতে আর পরে সার্থক গোলুই ও সৌরভ দাশের যোগ দেওয়াতে কি শক্তি বেড়েছে বলে মনে করেন ?

ফক্স : অবশ্যই। রাজু ও অঙ্কিত এসে ডিফেন্সকে বাড়তি নিরাপত্তা দিয়েছে। এছাড়াও পরে মুম্বই সিটি এফসি থেকে এসেছে সার্থক ও সৌরভ। মুম্বইয়ে মতো দলে ওরা নিয়মিত ফুটবলারদের মধ্যেই ছিল। এর থেকেই ওদের দক্ষতার একটা প্রমান পাওয়া যায়। ওরা আসার পরে আমরা আগের থেকে আরও বেশি ভালো খেলছি। তবে একটা কথা বলতে চাই, আমাদের দলের কিন্তু প্রতিটি ফুটবলারই গুরুত্বপূর্ণ। এমনকি যারা নিয়মিত খেলার সুযোগ পাচ্ছে না তারাও। তাই আলাদাকরে কারোর কথা না বলাই ভালো।

প্রশ্ন : সবুজ-মেরুনের রয় কৃষ্ণা এখন সাংঘাতিক ফর্মে। তাঁর সঙ্গে আছেন মার্সেলিনহো, মানবীর, উইলিয়ামস। ডিফেন্সে নেতা হিসাবে এঁদের কিভাবে আটকাবেন ভাবছেন ?

ফক্স : ঠিকই বলেছেন, রয় কৃষ্ণা সত্যিই অসাধারণ ফুটবলার। দারুন খেলছে। প্রচুর গোল করছে। ওকে আটকাতে হলে বাড়তি ভাবনাচিন্তা করতেই হবে। আসলে ও গত মরশুম থেকে একই দলে আছে। এটা ওর এবং দলের, দুই তরফেরই সুবিধা। তবে আমরা যেমন কৃষ্ণা, মানবীর, মার্সেলিনহোদের আটকাতে পরিকল্পনা করছি, তেমনি ওরাও আমাদের নিয়ে করবে। আমাদেরও কিন্তু পিলকিনটন, মাঘোমা, হলওয়েলের মতো ফুটবলাররা রয়েছে। যারা যখন তখন গোল করে ম্যাচের ভাগ্য ঘুরিয়ে দিতে পারে। ওদের আটকাতে এটিকে মোহনবাগানও পরিকল্পনা করছে।

প্রশ্ন : দল হিসাবে এটিকে মোহনবাগানকে কিভাবে দেখছেন?

ফক্স : দেখুন এমনি এমনি তো আর ওরা টেবিলের এক নম্বরে নেই। নিশ্চয়ই ভালো দল। ভালো ভালো ফুটবলার আছে, যারা ধারাবাহিকভাবে ভালো খেলছে। তাছাড়া একটা সেট দল দু-তিন বছর ধরে থাকারও একটা বাড়তি সুবিধা থাকে। সবমিলিয়ে ওদের গুরুত্ব তো দিতেই হবে।

প্রশ্ন : আপনাদের আর প্লে অফে যাওয়ার কোনও সুযোগ নেই। তাই নিজেদের তাতাচ্ছেন কিভাবে ?

ফক্স : হ্যাঁ, এটা সত্যি যে আমাদের আর প্লে অফে যাওয়ার সুযোগ নেই। কিন্তু এটা এদেশের ফুটবলের সবথেকে বড়ো একটা ম্যাচ। এই ম্যাচটাকে ঘিরে সমর্থকদের পাগলামি থাকে দেখার মতো। সমর্থকদের জন্যই ম্যাচটা জিততে হবে। কারণ এতকিছুর পরেও ওঁরা কিন্তু আমাদের পাশে আছেন। তাই সবথেকে বড়ো অনুপ্রেরণা এখন সমর্থকরাই। আর তাছাড়া বাকি সবকটা ম্যাচ জিতে যতটা সম্মানজনক জায়গায় শেষ করা যায়, সেটাও এখন লক্ষ্য।

প্রশ্ন : এতবড়ো একটা ম্যাচে আপনারা রবি ফাওলারকে ডাগ আউটে পাচ্ছেন না। এটা কি বড়ো ধাক্কা নাকি কোচের জন্যই ম্যাচটা জিততে চান ?

ফক্স : সত্যিই এটা দুঃখজনক যে আমরা এরকম একটা ম্যাচে কোচকে পাচ্ছি না। উনি গ্যালারিতে থাকবেন। তবে তার জন্য আমরা ভালো খেলতে পারব না, এমনও নয়। ওঁর যা যা নির্দেশ দেওয়ার সবটাই আমরা আগে পাচ্ছি। হ্যাঁ, অবশ্যই ভালো খেলে এবং জিতে কোচের মান রাখতে চাই।