পিছিয়ে থাকা বুথে বাড়তি নজর পিকের টিমের

0
565
ফালাকাটার একটি বুথে পিকের নির্দেশে তৃণমূল কংগ্রেসের বৈঠক
- Advertisement -

সুভাষ বর্মন, ফালাকাটা: ফালাকাটায় উপনির্বাচনের দিন যত এগিয়ে আসছে তৃণমূল কংগ্রেসের ভোট কৌশলী পিকের টিমের কৌশলগত তৎপরতা ততই বাড়ছে। করোনা পরিস্থিতিতে ফালাকাটায় স্থায়ীভাবে ঘাঁটি গেড়ে না থাকলেও পিকের প্রতিনিধিরা এখন ফোনের মাধ্যমেই নেতাকর্মীদের সঙ্গে যোগাযোগ বাড়িয়েছেন।

দলের ব্লক স্তরের নেতাদের সম্পর্কে আগেই খুঁটিয়ে তথ্য সংগ্রহ করেছেন পিকে। তাঁর টিম এখন দলের বুথ সভাপতিদের বার বার ফোনে নিবিড় যোগসূত্র তৈরি করছে বলে সূত্রের খবর। এক্ষেত্রে পিছিয়ে থাকা বুথগুলিতে বাড়তি নজর দেওয়া হচ্ছে। কয়েক মাস আগে বুথ সভাপতিদের দেওয়া তথ্য কতটা ঠিক আছে এবং বুথে দলের অগ্রগতি আদৌ হয়েছে কিনা সেসব তথ্য যাচাই করে চূড়ান্ত রিপোর্ট তৈরি করছে দলের আইপ্যাক টিম। এদিকে পিকের ফোন পেয়ে বুথে বুথে গোপন বৈঠক করছে তৃণমূল।

২০১৮-র পঞ্চায়েত নির্বাচন থেকেই ফালাকাটায় উত্থান শুরু হয় বিজেপির। দুর্বল সংগঠন সত্ত্বেও বিজেপির এখানে চূড়ান্ত সাফল্য আসে ২০১৯-র লোকসভা নির্বাচনে। তৃণমূলের থেকে ২৭ হাজার ভোট বেশি পাওয়ায় গেরুয়া সংগঠনের ভিত এখন অনেকটাই দৃঢ় হয়েছে। তবে ২০১১ থেকে এই জেতা আসনকে কোনওভাবেই হাতছাড়া করতে চাইছে না তৃণমূল। এজন্য রাজ্যের বনমন্ত্রী রাজীব বন্দোপাধ্যায় ও রাজ্য সাধারণ সম্পাদক ঋতব্র‍ত বন্দোপাধ্যায়কে ফালাকাটা দেখার জন্য বিশেষ দায়িত্ব দিয়েছেন দলনেত্রী। তবে প্রকাশ্যে দলের কাজকর্মের পাশাপাশি ভোট কৌশলী পিকের টিমের গোপনভাবে কাজের তৎপরতা এখন অনেক বেড়েছে। ওই টিমের লোকজন মাঝেমধ্যেই দল বেঁধে ফালাকাটায় এসে দলের হালহকিকত জেনে নিচ্ছেন। এক্ষেত্রে ফোনের মাধ্যমে যোগসূত্রকে বেশি নিবিড় করছেন পিকে। সূত্রের খবর, দলের ব্লক ও অঞ্চল স্তরের নেতাদের একাংশের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ নিয়ে আগেই রাজ্য স্তরে রিপোর্ট গিয়েছে। তবে উপনির্বাচনে প্রাকমুহূর্তে ওই নেতাদের বিরুদ্ধে কঠিন পদক্ষেপ করতে চাইছে না দল। এজন্য বুথ স্তরের গুরুত্ব বেড়েছে। তাই পিকের টিম এখন বুথ থেকেই দলের নীচু স্তরের রিপোর্ট বেশি করে সংগ্রহ করছে।

১৩টি গ্রাম পঞ্চায়েত নিয়ে গঠিত ফালাকাটা বিধানসভা আসনে ২৬৬টি বুথ রয়েছে। একসময় অধিকাংশ বুথই তৃণমূলের শক্তপোক্ত ঘাঁটি ছিল। কিন্তু গত লোকসভা ভোটের ফলাফল বলছে, ২৬৬টির মধ্যে ৭২টি বুথে বিজেপির থেকে এগিয়ে ছিল তৃণমূল। বাকি ১৯৪টি বুথে লিড নেয় বিজেপি। পিছিয়ে থাকা এই ১৯৪টি বুথেই তৃণমূল ও পিকের টিম বাড়তি নজর দিচ্ছে। আইপ্যাক টিমের পাশাপাশি বুথ স্তরের যাবতীয় রিপোর্ট সংগ্রহ করেছেন ঋতব্রত বন্দোপাধ্যায় ও রাজীব বন্দোপাধ্যায়। তাঁরা সাংগঠনিকভাবে নির্দেশ দিচ্ছেন। কিন্তু পিকের টিম বারবার ফোন করছে বুথ সভাপতিদের। কয়েক মাস আগে প্রতিটি বুথ থেকে ১৫ জন সক্রিয় কর্মীর নামের তালিকা সংগ্রহ করেন পিকে। এখন বুথ সভাপতি সহ তালিকাভূক্ত কর্মীদেরকেও ফোন করা হচ্ছে। পিকে জেনে নিচ্ছেন বুথের সংগঠন কী অবস্থায় রয়েছে, বৈঠক হচ্ছে কিনা, গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের প্রভাব কতটা, বুথ সভাপতির বয়স কত, তিনি কবে থেকে পদে আছেন, বুথে কোন সম্প্রদায়ের ভোটার কতজন, এলাকায় উন্নয়ন কতটা হয়েছে ইত্যাদি। এক্ষেত্রে প্রতিটি বুথে বারবার বৈঠক করারও নির্দেশ দেওয়া হচ্ছে। ফালাকাটার এক বুথ সভাপতি বলেন, ‘প্রায় দিনই পিকের টিমের ফোন আসছে। যাবতীয় তথ্য দেওয়া হচ্ছে। এজন্য বুথেও গোপন বৈঠক করা হয়েছে।’ তৃণমূলের ব্লক সাধারণ সম্পাদক সুভাষ রায় বলেন, ‘পিকের টিম কাজ করছে। আমাদেরও সাংগঠনিক স্তরে কার্যকলাপ চলছে। এখন বুথ স্তরকে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। তাই পরিস্থিতি অনেক বদলেছে। উপনির্বাচনে দলের ফলাফল ভালোই হবে।’

- Advertisement -