চাঁচলে জমে উঠল মহানন্দা নদীর তীরে মুড়ি আর আলুর দম খাওয়ার মেলা

342

চাঁচল, ১৬জানুয়ারি: সংক্রান্তির পরেরদিন চাঁচলে জমে উঠল মহানন্দা নদীর তীরে মুড়ি আর আলুর দম খাওয়ার মেলা। শীতের সকালে মহানন্দা নদীর হাড় হিম করা ঠান্ডা জলে স্নান করার পরই খেতে হয় মুড়ি আর আলুর দম। তবে এই প্রথা অভিনব হলেও মোটেও নতুন নয়। প্রায় ১৫০ বছরের বেশি সময় ধরে মহানন্দা নদীর ধারে অবস্থিত তিনটি গ্রামকে কেন্দ্র করে হয়ে আসছে এই মেলা। এই মেলাকে ঘিরে আজও সাধারণ মানুষের ঢল নামে আশাপুর, রতুয়া, মাগুরা এবং হরিশ্চন্দ্রপুর গোহিলা গ্রামে। মকরসংক্রান্তি উপলক্ষে ১৫ দিন ধরে একই সঙ্গে মহানন্দা নদীর ধার ঘেঁষা ওই তিনটি এলাকায় চলে মেলা গুলি। এই মেলার অন্যতম আকর্ষণ হল মুড়ি-আলুর দম খাওয়ার প্রচলন। তবে কখনোই সাধারণ মানুষেরা বাড়ি থেকে এই খাবার নিয়ে আসে না। মেলাতে মেলে এই সব খাবার। প্রতিটি মেলাতে পসরা সাজিয়ে মুড়ি এবং আলুর দম বিক্রি করে দোকানিরা। এছাড়াও মেলাতে বিভিন্ন কাঠের আসবাবপত্র পাওয়া যায়। উল্লেখ্য, ১৫ জানুয়ারী মকর সংক্রান্তি উপলক্ষে বিভিন্ন এলাকায় এমনিতেই সাধারণ মানুষের মধ্যে গঙ্গাস্নানের প্রচলন রয়েছে। কিন্তু চাঁচল মহাকুমার এই তিনটি গ্রামে মকর সংক্রান্তির মেলা একটু অন্য ধরনের। এই মেলায় ১০০টির বেশি দোকান বসে শুধু মুড়ি আর আলুর দম নিয়ে। পাঁচ টাকা থেকে দশ টাকা খরচ করলেই পাওয়া যায় ঠোঙ্গা ভর্তি মুড়ি আর রসালো আলুর দম।