জাল ওষুধ চক্রের হদিস, ধৃত ৫

140

আসানসোল: জাল ওষুধ চক্রের হদিস। জাল আয়ুর্বেদিক ওষুধ নির্মাতা ও পাচারকারী এবার পুলিশের জালে। আসানসোল দুর্গাপুর পুলিশ কমিশনারেটের কুলটি থানার বরাকর ফাঁড়ির পুলিশের তরফে জাল ওষুধ তৈরির কোম্পানির মালিক সহ গ্রেপ্তার করা হল পাঁচজনকে। ধৃতরা হল, মালিক ঋতেশকুমার গুপ্তা, এছাড়াও রয়েছে অজয় গুপ্তা, রূপেশ গুপ্তা, সুমন রুইদাস ও অশোক কুমার চৌধুরী।

জানা গিয়েছে, কুলটি থানার বরাকরের এক ব্যক্তির বাড়িতে জাল ওষুধ তৈরি করা হত। পরে সেখান থেকে সেই জাল আয়ুর্বেদিক ওষুধ উত্তরপ্রদেশ, বিহার, ঝাড়খণ্ডে পাচার করত এক অসাধু ব্যবসায়ী। গতকাল রাতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে বরাকর ফাঁড়ির হনুমান চড়াইয়ের বাউরি পাড়ায় ঋতেশকুমার গুপ্তা নামে ওই ব্যক্তির বাড়িতে হানা দিয়ে ১ লক্ষ ৫৫ হাজার ৬৯৩ টাকার জাল আয়ুর্বেদিক ওষুধ উদ্ধার করে। আসানসোল দুর্গাপুর পুলিশের এসিপি ওমরআলি মোল্লা জানান, বেআইনিভাবে আয়ুর্বেদিক ওষুধ তৈরি করে বিভিন্ন জায়গায় পাচার করা হত। তাদের ওষুধ তৈরি করা বা বিক্রি করার কোনও ড্রাগ লাইসেন্স নেই। এমনকি মধু তৈরি করে বিক্রি করা হচ্ছে। তারও ফুড সেফটি লাইসেন্স হওয়া উচিত। এই কোম্পানির কাছে সেটাও নেই। বেশ কিছুদিন ধরেই এই ব্যবসা চালানোর জন্য তারা কলকাতার বিভিন্ন জায়গা থেকে সামগ্রী কিনে এনে বাড়ির ভিতরে ওষুধ তৈরি করে নামী কোম্পানির লেবেল লাগিয়ে বিভিন্ন রাজ্যে বিক্রি করত। ধৃতদের মঙ্গলবার জেলা আদালতে তোলা হয়। এর পেছনে আর কেউ জড়িত রয়েছে কিনা তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

- Advertisement -