উপনির্বাচন নিয়ে ফালাকাটায় তৃণমূলের দফায় দফায় বৈঠক

659

ফালাকাটা: রাজ্য নেতৃত্বের কড়া নির্দেশে ফালাকাটায় এবার নড়েচড়ে বসল তৃণমূল কংগ্রেস। সম্প্রতি দলের পদে থেকে কাজ না করলে ছাঁটাইয়ের বার্তা দেন এই কেন্দ্রের বিশেষ দায়িত্বপ্রাপ্ত তথা বনমন্ত্রী রাজীব বন্দোপাধ্যায়। নির্দেশ দেওয়া হয়, আগামী ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে দলের লিফলেট নিয়ে বাড়ি বাড়ি গিয়ে জনসংযোগের কাজ পুরোপুরি শেষ করতে হবে। এবার এসব ক্ষেত্রে কারও গাফিলতির প্রমাণ পেলে যে শাস্তির খাঁড়া নেমে আসতে পারে তা বুঝতে পেরেই মঙ্গলবার ফালাকাটা বিধানসভা কেন্দ্রে দফায় দফায় বৈঠক করেন তৃণমূল কংগ্রেসের নেতাকর্মীরা।

এদিন দুপুরে ফালাকাটা ব্লকের ১২টি অঞ্চলের দলীয় সভাপতি ও ব্লক কমিটির প্রতিনিধিদের নিয়ে তৃণমূলের ব্লক কার্যালয়ে সাংগঠনিক বৈঠক হয়। সেখানে উপস্থিত ছিলেন দলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক ঋতব্রত বন্দোপাধ্যায়, জেলা সভাপতি মৃদুল গোস্বামী। সূত্রের খবর, শীর্ষ নেতৃত্বরা বৈঠকে জানান, আগামী ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে যে অঞ্চলে জনসংযোগে যতটা ঘাটতি রয়েছে তা পূরণ করতে হবে। এজন্য অঞ্চল সভাপতিদের বিশেষ দায়িত্ব নিতে হবে। বুথ সভাপতি ও কর্মীদের নিয়ে বাড়ি বাড়ি যাওয়া শেষ করার নির্দেশ দেওয়া হয়।

- Advertisement -

কোন বুথে কী কী সমস্যা, সাধারণ ভোটারদের দাবি বা ক্ষোভের কারণ কী, মানুষ কেন বিজেপিকে ভোট দিল, নেতাদের দোষত্রুটি কোথায়, কী করলে ভোটাররা ফের তৃণমূলমুখী হবেন- এসব খুঁটিয়ে রিপোর্ট তৈরি করতে বলা হয় অঞ্চল সভাপতিদের। দলীয় সূত্রের খবর, পদ হারানোর আশঙ্কায় দলের স্থানীয় নেতাদের মধ্যে কাজে ঝাঁপিয়ে পড়ার জন্য এখন হুড়োহুড়ি শুরু হয়েছে। তাই এদিনের বৈঠকে পদাধিকারী সব নেতাই উপস্থিত ছিলেন। এ প্রসঙ্গে তৃণমূলের ব্লক সাধারণ সম্পাদক সুভাষ রায় বলেন, এখন আর কারও বসে থাকলে চলবে না। রাজ্যের নির্দেশে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যেই জনসংযোগের বাকি কাজ শেষ করতে হবে। এদিনের বৈঠকে অঞ্চল সভাপতিদের সেই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এদিকে আলিপুরদুয়ার-১ ব্লকের পূর্ব কাঁঠালবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতটি ফালাকাটা বিধানসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত। গত লোকসভা নির্বাচনে এই গ্রাম পঞ্চায়েতেও বিজেপির থেকে ভোট কম পায় তৃণমূল। রাজ্য নেতৃত্ব পূর্ব কাঁঠালবাড়ি দেখার জন্য বিশেষ দায়িত্ব দেয় দলের ব্লক সভাপতি তথা জেলা পরিষদের সহকারি সভাধিপতি মনোরঞ্জন দে-কে। গত রবিবার তিনি খামবন্ধ অবস্থায় এই অঞ্চলের ২১টি বুথের রিপোর্ট জমা দেন রাজীব বন্দোপাধ্যায়কে। এদিন বিকেলে মনোরঞ্জনবাবু অঞ্চল কমিটির প্রতিনিধি ও বুথ সভাপতিদের নিয়ে বৈঠক করেন।

পরে তিনি বলেন, পূর্ব কাঁঠালবাড়িতে দলের অবস্থান এখন অনেকটাই ভালো। এই অঞ্চলেও আগামী ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে দলের লিফলেট নিয়ে জনসংযোগ শেষ কর‍তে হবে। প্রত্যেকের বাড়ি যেতেই হবে। এ নিয়েই বৈঠকে আলোচনা করা হয়।