ফালাকাটায় উপনির্বাচনের আগে বিজেপিতে ভাঙন

1134

ফালাকাটা: তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য নেতৃত্বের নির্দেশে দায়িত্ব পেয়ে এক মাসের মধ্যেই ফালাকাটা বিধানসভা কেন্দ্রের পূর্ব কাঁঠালবাড়ি অঞ্চলের সাংগঠনিক অবস্থান বদলে দিলেন মনোরঞ্জন দে। তাঁর নেতৃত্বে এক মাস ধরে এই অঞ্চলের ২১টি বুথে মিটিং করার পর সোমবার মরিচঝাঁপি এলাকায় বুথভিত্তিক কর্মীসভায় ব্যাপক সাড়া লক্ষ্য করা যায়। মনোরঞ্জনবাবু তৃণমূলের সংগঠন মজবুত করার পাশাপাশি বিজেপিতেও ভাঙন ধরাতে সক্ষম হয়েছেন। এদিনের কর্মীসভায় এই অঞ্চল থেকে বিজেপির প্রতীকে নির্বাচিত আলিপুরদুয়ার-১ পঞ্চায়েত সমিতির বিরোধী দলনেতা গৌতম সরকার অনুগামীদের নিয়ে তৃণমূলে যোগদান করেন। যদিও বিজেপির দাবি, তাদের একজন জনপ্রতিনিধি দলবদল করায় সংগঠনের কোনও ক্ষতি হবে না।

দুটি ব্লকের মধ্যে থাকায় পূর্ব কাঁঠালবাড়িতে তৃণমূলের নড়বড়ে সংগঠন দেখে প্রকাশ্যে ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন দলের তরফে ফালাকাটা কেন্দ্রের বিশেষ দায়িত্বপ্রাপ্ত তথা বনমন্ত্রী রাজীব বন্দোপাধ্যায়। তিনি গত ২৯ অগাস্ট এই অঞ্চলটি দেখার জন্য দায়িত্ব দেন দলের আলিপুরদুয়ার-১ ব্লক সভাপতি তথা জেলা পরিষদের সহকারি সভাধিপতি মনোরঞ্জন দে-কে। তারপর থেকে বুথ স্তরে টানা বৈঠক করে খামবন্দি অবস্থায় পূর্ব কাঁঠালবাড়ির ২১টি বুথের গোপন রিপোর্ট তৃণমূলের রাজ্য স্তরে পাঠানো হয়। এদিন গোটা অঞ্চলকে নিয়ে ছিল বুথ ভিত্তিক কর্মীসভা।

- Advertisement -

সেখানে দলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক ঋতব্রত বন্দোপাধ্যায়, জেলা সভাপতি মৃদুল গোস্বামী, আইএনটিটিইউসি-র জেলা সভাপতি মানিক দে সহ একঝাঁক তৃণমূল নেতা উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও প্রতিটি বুথ থেকে ৩০ জন করে ছ’শোরও বেশি দলের কর্মী ওই সভায় উপস্থিত ছিলেন। এই কর্মসূচিতেই পঞ্চায়েত সমিতির বিরোধী দলনেতা গৌতম সরকার তৃণমূলের পতাকা হাতে তুলে নেন। পরে তিনি বলেন, সাতটি বুথ নিয়ে আমার নির্বাচিত এলাকায় দু’বছরে কোনও উন্নয়নমূলক কাজ করতে পারিনি৷ তাই মমতা বন্দোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে তৃণমূল কংগ্রেসের উন্নয়নমূলক কর্মযঞ্জে সামিল হতেই এদিন দলবদল করলাম।

সূত্রের খবর, মনোরঞ্জন দে-র নেতৃত্বেই বিজেপিতে ভাঙন সম্ভব হয়েছে। তিনি বলেন, গত লোকসভা নির্বাচনের ভুল মানুষ বুঝতে পেরেছে। তাই বিজেপির জনপ্রতিনিধিরাও আমাদের দল আসছেন। কারণ, আমাদের সরকারের মাধ্যমে ধারাবাহিক উন্নয়ন চলছে। ঋতব্রত বন্দোপাধ্যায় বলেন, মনোরঞ্জন দে পূর্ব কাঁঠালবাড়িতে দলের অঞ্চল সভাপতির মত কাজ করছেন। তাই এখানে সংগঠন অনেক বদলেছে। এরপর দ্বিতীয় ধাপে ফের অঞ্চল ভিত্তিক কর্মসূচি করা হবে। ফালাকাটা উপনির্বাচনে বিজেপিকে ইঞ্চিতে ইঞ্চিতে মেপে নেওয়া হবে বলে জানান তৃণমূলের জেলা সভাপতি মৃদুল গোস্বামী।

তবে বিজেপির জেলা সাধারণ সম্পাদক দীপক বর্মন বলেন, প্রশাসনিক চাপেই হয়ত আমাদের একজন জনপ্রতিনিধি দল বদল করেছেন। এজন্য বিজেপির সাংগঠনিক কোনও ক্ষতি হবে না৷ বরং উপনির্বাচনে এবারও পূর্ব কাঁঠালবাড়িতে ভোটে লিড পাব আমরা।