ফালাকাটা : ফালাকাটা বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচন নিয়ে এখনও নোটিফিকেশন জারি করেনি নির্বাচন কমিশন। তবে উপনির্বাচনের জন্য প্রস্তুতি শুরু করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। বিধায়ক অনিল অধিকারীর মৃত্যুতে এলাকায় সংগঠনের হাল ধরতে বিকল্প নেতৃত্ব নিয়ে দলের অন্দরেই প্রশ্ন রয়েছে। সেজন্য দলের হাইকমান্ড আগেভাগেই প্রশান্ত কিশোরের টিমকে ফালাকাটায় পাঠিয়ে দিয়েছে। পিকে-র টিম যে শহরে আস্তানা নিয়েছে তা মেনে নিয়েছেন তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব। ইতিমধ্যে পিকের বাছাই করা প্রতিনিধিরা ভিতরে ভিতরে সংগঠনের যাবতীয় তথ্য সংগ্রহ করে কাজ শুরু করেছেন। তবে বিজেপির সহ বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি পিকের টিমকে পাত্তা দিতে নারাজ। বিরোধীদের পালটা কটাক্ষ,এতেই প্রমাণিত হচ্ছে যে ফালাকাটায় শাসকদলের যোগ্য নেতৃত্ব নেই।

গত লোকসভা ভোটের আগে থেকেই অসুস্থ ছিলেন ফালাকাটার বিধায়ক অনিল অধিকারী। তাঁর অসুস্থতার কারণে লোকসভা ভোটে তৃণমূলের থেকে এই বিধানসভা কেন্দ্রে ২৭ হাজার ভোট বেশি পায় বিজেপি। সম্প্রতি তাঁর মৃত্যুতে ফালাকাটায় উপনির্বাচন হতে চলেছে। এতদিন কিছুটা ঝিমিয়ে থাকলেও সম্প্রতি রাজ্যের তিন বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনে দলের ভালো ফল হওয়ায় এখন অনেকটা উজ্জীবিত তৃণমূলের ফালাকাটার নেতৃত্ব। তৃণমূল সূত্রে খবর, খড়গপুর সদর, করিমপুর ও কালিয়াগঞ্জ উপনির্বাচনে দলের ভালো ফলাফলের পিছনে পিকের টিমের বড়ো অবদান রয়েছে। এদিকে নীচুতলার কর্মীদের কথায়, ফালাকাটায় প্রয়াত বিধায়ক অনিল অধিকারীর বিকল্প নেতা নেই। এই বিষয়টিও বুঝে নিয়েছে টিম পিকে। তাই উপনির্বাচনে দলকে জেতানোর ক্ষেত্রে কী কৌশল নিতে হবে তা ঠিক করতে ফালাকাটা শহরের একটি হোটেলে থেকে কাজ শুরু করে দিয়েছে পিকের টিম।

এই বিধান সভা কেন্দ্রের অধীনে রয়েছে ১৩টি গ্রাম পঞ্চায়েত। দলের প্রতিটি অঞ্চল সভাপতি থেকে শুরু করে বিভিন্ন শাখা সংগঠনের ব্লক ও অঞ্চল সভাপতিদের সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ রাখছে পিকের টিম। কয়েকজনের সরাসরি দেখাও করছেন তাঁরা। কোথায় জনসংযোগের ঘাটতি রয়েছে, নেতাদের মধ্যে গোষ্ঠীদ্বন্দের প্রভাব কতটা, সরকারি প্রকল্প নিয়ে সাধারণ মানুষের অভাব অভিযোগ আছে কিনা, সাধারণ ভোটারদের সমর্থন পেতে কী করণীয়-এসব কিছুই পর্যবেক্ষণ করছে পিকের টিম।

দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ‘ফালাকাটায় তৃণমূলের প্রার্থীপদ নিয়ে জলঘোলা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সেজন্য প্রার্থী বাছাইয়ের ক্ষেত্রেও বিশেষ ভূমিকা পালন কর‍তে চলেছে টিম পিকে। কোনোভাবেই যাতে প্রার্থীপদ নিয়ে বিতর্ক বেশি না হওয়ায় সেদিকেও নজর রয়েছে তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্বের।

ফালাকাটায় তৃণমূলের এক শাখা সংগঠনের ব্লক সভাপতি বলেন, ‘পিকে-র লোকজন আমার সঙ্গে ফোনে যোগাযোগের পর সরাসরি দেখা করেছে। ওদের সবরকম সহায়তা করা হচ্ছে।’ ১০-১২ দিন হল ফালাকাটায় পিকে-র টিম রয়েছে বলে মেনে নিয়েছেন দলের ব্লক কার্যকরী সভাপতি সন্তোষ বর্মন। তিনি বলেন,’এরকম খবর আমাদের কাছেও আছে। তবে আমার সঙ্গে এখনও কেউ যোগাযোগ করেনি। কিন্তু বিভিন্ন অঞ্চল নেতৃত্বের সাথে ওদের যোগাযোগ হচ্ছে।’ প্রার্থীর ব্যাপারেও পিকে-র লোকজন সমীক্ষা চালাচ্ছে বলে তিনি জানিয়েছেন।

বিজেপির জেলা সাধারণ সম্পাদক জয়ন্ত রায় বলেন, ‘আলিপুরদুয়ার জেলা বিজেপি নেতৃত্ব পিকে-র থেকেও বেশি ওয়াকিবহাল। এজন্য পিকে নিয়ে আমরা চিন্তিত নই। আমরা আমাদের মতোই প্রস্তুতি নিচ্ছি।’ পিকের টিম আছে কি না সেব্যাপারে কিছুই জানা নেই বলে জানিয়েছেন সিপিএমের জেলা সম্পাদক ফালাকাটার মৃণাল রায়।

তথ্য ও ছবি- সুভাষ বর্মন