ফালাকাটা হাটখোলায় আবর্জনার পাহাড়, অতিষ্ঠ মানুষ

422

ফালাকাটা :  ডুয়ার্সের ফালাকাটা হাটখোলায় আবর্জনার পাহাড় জমেছে। তা বাড়তে বাড়তে এমনই অবস্থা যে আশপাশের বাড়িঘরও ঢাকা পড়ছে তার আড়ালে । হাটখোলা মাংসবাজারের পাশে  ওই আবর্জনার স্তূপ এখন ভাগাড়ের চেহারা  নিয়েছে। সেখানে  ভন ভন করছে মাছি, উড়ে বেড়াচ্ছে শয়ে শয়ে কাক, চিল, চরে বেড়াচ্ছে শুয়োর, কুকুর। ভয়াবহ দূষণ ও দুর্গন্ধে দমবন্ধ অবস্থা বাসিন্দাদের।

ফালাকাটার হাটখোলায় আবর্জনা ফেলার নির্দিষ্ট কোনো জায়গা নেই। ফলে খুচরো  মাছ ব্যবসায়ী, পাইকারী মাছের আড়তদার সহ বাজারের ব্যাবসায়ীদের সকলেই মাংসবাজারের পাশে আবর্জনা ফেলেন। অন্ধ্রপ্রদেশ থেকে বড়ো বড়ো ট্রাক বোঝাই করে সারা বছর থার্মোকলের কার্টনে ভরে মাছ আসে ফালাকাটা বাজারে। সেই সব থার্মোকল, প্লাস্টিক, মাছ বাজারের আবর্জনা  সবই ফেলা হয়  সেখানে। ফলে ওই এলাকা এখন ভাগাড়ের চেহারা নিয়েছে।

- Advertisement -

ফালাকাটা হাটখোলাজুড়ে এরকম বেশ কয়েকটি আবর্জনার  স্তূপ তৈরী হয়ে রয়েছে। পুরানো কলাহাটির পাশে একটি বন্ধ গলির মুখেও আবর্জনার  স্তূপ রয়েছে দীর্ঘদিন ধরে। তার পাশেই রয়েছে পিএইচই-র পানীয় জলের কল। বাধ্য হয়ে  আবর্জনার পাশে দাঁড়িয়েই ওই কল থেকে পানীয় জল নিতে হচ্ছে স্থানীয়  বাসিন্দা ও হাট ব্যবসায়ীদের।

আলিপুরদুয়ার জেলা পরিষদের অধীন ফালাকাটার এই হাট থেকে প্রতিদিন খাজনা আদায় করা হত। তবে আগের ইজারাদারের মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ায় জেলা পরিষদের তরফে নতুন করে হাটের ডাক না হওয়ায়  বছরখানেক ধরে খাজনা আদায় বন্ধ রয়েছে। এই অবস্থায় হাটের সাফাই ব্যবস্থাও ভেঙে পড়েছে। আবর্জনার স্তূপ পরিষ্কার করতে উদ্যোগী হচ্ছে না জেলা  পরিষদ কর্তৃপক্ষ। এনিয়ে  ক্ষোভ বাড়ছে আশ পাশের ব্যাবসায়ী, স্থানীয় বাসিন্দা ও ফালাকাটার নাগরিকদের মধ্যে। কয়েকমাস আগে  ওই আবজ’নার স্তূপে  আগুন লাগে। তবে আগুন ছড়িয়ে পড়ার আগেই ফালাকাটা দমকল দ্রুত আগুন আয়ত্তে আনে।

হাটের ওই পরিস্থিতি নিয়ে  ফালাকাটা হাট ব্যাবসায়ী সমিতির সম্পাদক রতন বর্ধন  বলেন, ‘এলাকায় আবর্জনা ফেলার নির্দিষ্ট  জায়গা বা ডাম্পিং গ্রাউন্ড নেই।  সমস্যার কথা  পঞ্চায়েত সমিতি, জেলা পরিষদ সহ বিভিন্ন মহলে জানানো হয়েছে।’  আলিপুরদুয়ার জেলা পরিষদের সভাধিপতি শীলা দাস সরকার সমস্যার কথা মেনে নিয়ে বলেন, ‘ফালাকাটা  হাটের  সমস্যার বিষয়টি  আমাদের নজরে রয়েছে। ওই আবর্জনার স্তূপ  সরানোর ব্যাপারে জেলা পরিষদের তরফে খুব শীঘ্রই  উদ্যোগ নেওয়া হবে।’

ছবি- আবর্জনার পাহাড় ফালাকাটার হাটখোলায়।

তথ্য ও ছবি সুকমল ঘোষ