উচ্চশিক্ষায় বাধা অর্থ, স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সহযোগিতার আবেদন পরিবারের

288

তুফানগঞ্জ: অর্থের অভাবে উচ্চশিক্ষা বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে। যে কারণে স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সহযোগিতার আবেদন চাইছে পরিবার। তুফানগঞ্জ-১ ব্লকের ধলপল-২ গ্রাম পঞ্চায়েতের ছাটরামপুরের ছাটগেন্দিগুড়ি এলাকায় শুভজিৎ দাসের বাড়ি। সে ছাটরামপুর হাইস্কুল থেকে মাধ্যমিক দিয়েছিল। প্রায় ৯৭ শতাংশ নম্বর পেয়েছে। বাবা ইন্দ্রজিৎ দাস দিনমজুর, মা বিমলা দাস গৃহবধূ, দাদা প্রসেনজিৎ দাস এবছর কলেজে ভর্তি হবে। নুন আনতে পান্তা ফুরোনোর মতো অবস্থা পরিবারের। বিদ্যালয় বন্ধ থাকায় মাঝেমধ্যেই শিক্ষকদের সঙ্গে যোগাযোগ করে পরামর্শ নিত। দিনে ৮ ঘণ্টার মতো পাঠ্যবই পড়ত। তবে পরীক্ষা হলে আরও বেশি নম্বর উঠত বলে মনে করে সে। ভবিষ্যতে কলেজের প্রফেসর হওয়ার স্বপ্ন রয়েছে তাঁর।

শুভজিৎ দাসের বাবা ইন্দ্রজিৎ বলেন, ‘ছেলের রেজাল্টে আমরা খুশি। তবে পরীক্ষা হলে ভালো হত। আমি দিনমজুরের কাজ করে কোনওরকমে সংসার চালাই। তার উচ্চ শিক্ষায় অর্থ বাধা হয়ে দাঁড়াবে। কোনও সরকারি বা স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন সহযোগিতা করলে আমার খুব সুবিধা হত এবং ছেলের পড়াশোনায় কোনও বাধা সৃষ্টি হত না।’

- Advertisement -

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অনিল সাহা বলেন, ‘শুভজিতের ফলাফলে আমরা খুশি। পরীক্ষা হলে হয়ত আরও বেশি নম্বর পেত। সে ছোটবেলা থেকেই মেধাবী ছাত্র ছিল। তার পরিবারের আর্থিক অবস্থা খুবই খারাপ। আমি ব্যক্তিগতভাবে যতটা পারি সহযোগিতা করব।’