দেবীকে লন্ঠনের আলোয় বিদায় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের

200

চাঁচল: দেবীকে লন্ঠনের আলোয় বিদায় দিলেন এলাকার সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষ। শুক্রবার গোধূলি বেলায় এমন সম্প্রীতির নিদর্শনের ছবি ধরা পড়ল চাঁচল শহরের অনতিদূরে পাহাড়পুরের মরা মহানন্দার ঘাটে। এই রীতি প্রায় সাড়ে তিনশো বছর ধরে চলছে।

কথিত আছে, কোনও এক সময় চাঁচল শহরের অনতিদূরে পাহাড়পুর মরা মহানন্দা নদীর তীরবর্তী এলাকার বিদ্যানন্দপুর গ্রামে এক ভয়াবহ মহামারী দেখা দিয়েছিল। ওই গ্রামের এক ব্যক্তি স্বপ্ন দেখেন পাহাড়পুরের চন্ডী মন্দিরের দেবীকে বিদায় বেলায় লন্ঠনের আলোয় দেখতে হবে। তাহলে ভয়াবহ মহামারীমুক্ত হবে পুরো গ্রাম। তারপর থেকে সেই আলোর প্রথা আজও প্রচলিত। ওই গ্রামের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষেরা আজও মাকে লন্ঠনের আলো জ্বালিয়ে দশমীর দিন বিদায় দেন। তবে এখন সেই লন্ঠনের প্রচলন উঠতে চলেছে। এখন ডিজিটালকে হাতিয়ার করেই মোবাইলের ফ্ল্যাশ বা চার্জার লাইট জ্বালিয়ে দেবীকে বিদায় জানাচ্ছেন সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষেরা।

- Advertisement -